[…]১২ জেলায় ১২ আইসিটি পার্ক হচ্ছে

১২ জেলায় ১২ আইসিটি পার্ক হচ্ছে

ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম:
আপডেট সময়:অক্টোবর ৩১, ২০১৮ , ৮:৫৯ পূর্বাহ্ন
বিভাগ: টেকসই উন্নয়ন

একুশ শতকের চাহিদা মেটাতে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে দেশে ১২টি হাইটেক আইসিটি পার্ক গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ডাক, টেলিযোগাযোগ, তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে।

২০১৭ সালের ২৪ এপ্রিল জাতীয় অর্থনৈতিক কাউন্সিলের (একনেক) নির্বাহী কমিটি ১২ জেলায় হাইটেক আইসিটি পার্ক প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়। ১ হাজার ৭৯৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত এসব পার্কে আইসিটি পণ্য উৎপাদিত হবে, যা রফতানি করে বাংলাদেশ প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে সক্ষম হবে। ২০২০ সালের মধ্যে এই প্রকল্প সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন হলে প্রায় ৬০ হাজার বেকারের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে আশা করছে সরকার।

ঢাকার কেরানীগঞ্জ, চট্টগ্রামের বন্দর, সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ, বরিশাল সদর, খুলনার টুটপাড়া, ময়মনসিংহ সদর, জামালপুর সদর, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ, কক্সবাজারের রামু, রংপুর সদর, নাটোরের সিংড়া ও গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এই ১২ জেলায় নির্মিতব্য এসব হাইটেক আইসিটি পার্কের বিস্তারিত তথ্য জানাচ্ছেন এম রেজাউল করিম

কেরানীগঞ্জ আইসিটি পার্ক

সারা দেশে প্রাথমিক পর্যায়ে ১২টি হাইটেক আইসিটি পার্কের প্রকল্পের মধ্যে ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলায় একটি আইসিটি পার্ক স্থাপিত হবে। উপজেলার কোন্ডা ইউনিয়নের জাজিরা এলাকায় এই পার্কের জন্য জায়গাও নির্ধারিত করা হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে এই নির্ধারিত জায়গা পরিদর্শন করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নজরুল হামিদ বিপু ও হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি।

নাটোর আইসিটি পার্ক

নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সিংড়ার শেরকোলে জেলা পর্যায়ে হাইটেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষ হয়েছে। চলতি মাসের ১৯ তারিখ এই হাইটেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। উপজেলার নিঙ্গইন এলাকায় ৫ দশমিক ২০ একর জমির ওপর ১৫৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হবে হাইটেক পার্কটি। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে সিংড়া উপজেলায় ৫ হাজার তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে। একই সঙ্গে উপজেলার আড়াই হাজার তরুণ-তরুণী আইসিটি বিষয়ে প্রশিক্ষণের সুযোগ পাবে।

সিংড়ায় হাইটেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

রংপুর আইসিটি পার্ক

১২টি আইসিটি হাইটেক পার্ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষকে নির্দিষ্ট জায়গা হস্তান্তর করেছে রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক)। রসিক আওতাধীন তপোধন এলাকায় খলিসাকুড়িতে নির্মিত হচ্ছে এই পার্ক। প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে এ প্রকল্প। রংপুর হাইটেক পার্কে নির্মিত হবে একটি সাত তলাবিশিষ্ট স্টিলের মাল্টিটেনেন্ট ভবন ও তিন তলাবিশিষ্ট একটি ডরমেটরি ভবন।

সিলেট আইসিটি পার্ক

সিলেট শহর থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ১৬২ দশমিক ৮৩ একর জমির ওপর নির্মিতব্য ‘ইলেকট্রনিক সিটি’র মধ্যেই স্থাপন করা হবে সিলেট হাইটেক আইসিটি পার্ক। সে লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই আইসিটি পার্কের জন্য জমি নির্ধারণ করে দিয়েছে হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ।

সিলেট হাইটেক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ইতোমধ্যে সিলেট হাইটেক পার্কের ভূমি উন্নয়নের অধিকাংশ কাজ হয়ে গেছে। সিলেট হাইটেক পার্কে বর্তমানে ভূমি উন্নয়ন ও উন্নয়নসংশ্লিষ্ট কাজ বাংলাদেশ নৌবাহিনী পরিচালিত ডকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড কর্তৃক বাস্তবায়িত হচ্ছে।

বরিশাল আইসিটি পার্ক

বিভাগীয় শহর বরিশালেও আইসিটি পার্ক তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে ৯ একর জমি সংগ্রহ করে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশালে ৩৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন, যার মধ্যে এই হাইটেক আইসিটি পার্কও তালিকাভুক্ত ছিল।

জানা যায়, বরিশাল সদরের জেলা বাস টার্মিনালের (নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড) পাশে এই হাইটেক আইসিটি পার্ক নির্মাণ করা হচ্ছে।

খুলনা আইসিটি পার্ক

খুলনার রূপসা নদীর তীরে তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর হাইটেক পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চলতি বছরের ৫ মার্চ এই পার্কটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। এরই মধ্যে হাইটেক পার্কটি নির্মাণের উদ্দেশ্যে স্থান নির্বাচন ও জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়েছে। নগরীর টুটপাড়া মৌজায় ৩ একর ৫৯ শতক খাস জমিতে হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে। ১৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য খুলনা হাইটেক পার্কে অন্তত ১২ হাজার তরুণের কর্মসংস্থান হবে বলে জানিয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ।

কুমিল্লা আইসিটি পার্ক

সরকার কর্তৃক গৃহীত ১২টি আইসিটি পার্ক প্রকল্পের আওতাধীন কুমিল্লা জেলার পার্কটি নির্মিত হতে যাচ্ছে জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার দত্তপুরে। চলতি বছরের ৯ জুন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এই পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রায় ১১ একর জমির ওপর এই কমপ্লেক্স নির্মিত হলে ২৫০০ তরুণ-তরুণী আইটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন সংশ্লিষ্টরা।

ময়মনসিংহ ও জামালপুর আইসিটি পার্ক

১২টি আইসিটি পার্কের মধ্যে ময়মনসিংহ সদরে একটি এবং জামালপুর শহরের বজ্রাপুর এলাকায় একটি আইসিটি পার্ক নির্মাণ করা হবে। ময়মনসিংহ সদরের জন্য নির্ধারিত জায়গা সম্পর্কে জানা না গেলেও জামালপুরে গণপূর্ত অধিদফতরের অধিকৃত সাড়ে ৫ একর জমিতে ১৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হবে জামালপুর হাইটেক আইসিটি পার্ক। আগামী ১১ অক্টোবর ময়মনসিংহ ও জামালপুর আইসিটি পার্কের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কক্সবাজার আইসিটি পার্ক

তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশ ও ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখতে পর্যটননগরী কক্সবাজারের রামুতে নির্মাণ করা হচ্ছে হাইটেক আইসিটি পার্ক। রামু উপজেলার চেইন্দা এলাকায় প্রায় ৯ একর জমিতে হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে। এ পার্ক চালু হলে প্রায় দেড় হাজার শিক্ষিত বেকারের চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে মনে করছেন হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম বন্দর হাইটেক আইসিটি পার্ক এবং গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

১২টি হাইটেক আইসিটি পার্ক কর্তৃপক্ষের প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মেহেদী হাসান বাংলাদেশের খবরকে বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের আইসিটি পার্কের জন্য এখনো কোনো জমি নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। তবে এই সমস্যা নিরসনে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। একই সঙ্গে গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইসিটি পার্ক নির্মাণের জন্য জমি নির্ধারণ করে দিয়েছে। খুব শিগগিরই আমরা এখানেও কাজ শুরু করব।



নির্বাচন বার্তা