[…]নির্বাচনে জামায়াত নেতাদের দলীয় পরিচিতি বিএনপি

নির্বাচনে জামায়াত নেতাদের দলীয় পরিচিতি বিএনপি

ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম:
আপডেট সময়:নভেম্বর ২৯, ২০১৮ , ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন
বিভাগ: সংবাদ

যুদ্ধাপরাধী সাঈদীর ছেলেও ধানের শীষের প্রার্থী

যুদ্ধাপরাধে আজীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে শামীম সাঈদী আসন্ন নির্বাচনে বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
তার ছোট ভাই ইন্দুরকানি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ সাঈদী মনোননয়নপত্র জমার শেষ দিন বিকালে পিরোজপুর-১ আসনের জন্য রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে ওই মনোনয়নপত্র জমা দেন।

জামায়াতের নেতাদের নির্বাচন কমিশনে পরিচয় হবে বিএনপির দলীয় নেতা হিসেবে। মির্জা ফখরুল স্বাক্ষরিত বিএনপির অফিসিয়াল প্যাডে জামায়াত নেতাদের দলীয় নেতা হিসেবে উল্লেখ নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন জমা দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছাত্র ও যুব সমাজ সহ অনেকের মধ্যে ক্ষোভ ও ঘৃণার সঞ্চার হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের স্বাক্ষরে শামীম সাঈদীর প্রাথমিক মনোনয়নের একটি প্রত্যয়নপত্রের ছবিও মাসুদ সাঈদী তার ফেইসবুকে দিয়েছেন।

নিবন্ধন হারানো দল জামায়াতে ইসলামীর সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান আকন্দ দাবি করেছেন, তাদের প্রার্থীরা এবার জোট শরিক বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়েই নির্বাচনে অংশ নেবে।

বুধবার ঢাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে ঢাকা-১৫ আসনে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানের পক্ষে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোট থেকে তাদেরকে ২৫টি আসন নিশ্চিত করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, “আমরা ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করব ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে।”

পিরোজপুরে শামীম সাঈদী এবং সিলেটে জামায়াত নেতা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর নামে ধানের শীষের প্রত্যয়নপত্রের ছবি ফেইসবুকে ঘুরলেও এ বিষয়ে মুখ খোলেননি বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতাদের কেউ।

মতিউর রহমান আকন্দ ২৫টি আসনে জোটের সম্মতি পাওয়ার কথা বললেও সারা দেশে জামায়াত নেতারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৩০টির বেশি আসনে।

কিছু আসনে জামায়াত নেতারা ধানের শীষ প্রতীকের প্রত্যয়ন নিয়ে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আবার কিছু আসনে তাদের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে স্বতন্ত্র হিসেবে।

বেশিরভাগ আসনে বিএনপির বিকল্প প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিলেও চট্টগ্রাম-১৫ আসন বিএনপি তাদের জোটসঙ্গী জামায়াতকে পুরোপুরি ছেড়ে দিয়েছে।

আবার ঢাকা-১৫ আসনে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানের পাশাপাশি অনেকটা আকস্মিকভাবেই বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয় সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপনের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে বুধবার।

উল্লেখ্য, একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামী নির্বাচন কমিশনের শর্ত পূরণ করতে না পারায় আদালতের আদেশে নিবন্ধন হারায়। পরে তাদের প্রতীক দাঁড়িপাল্লাও প্রতীকের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়।



নির্বাচন বার্তা