সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০৫:৩৭ পূর্বাহ্ন

কাতার যেভাবে বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ছড়াচ্ছে

সুভাষ হিকমত
আপডেট : রবিবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

কাতার, মধ্যপ্রাচ্যের একটি দেশ। তেল বিক্রির টাকায় রাতারাতি ধনী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এরপর থেকেই তারা বিভিন্ন বিতর্কিত কাজে জড়িয়ে পড়তে থাকে। এখানকার রাজ পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদ থেকে শুরু করে বিভিন্ন দেশে উগ্রবাদী গোষ্ঠীকে পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগ আছে।
এমনকি কাতারের রাজ পরিবারের সুরক্ষাবলয়ে আশ্রয় হয়েছে আল-কায়েদার সন্ত্রাসীদেরও। এমনকি ব্রাদারহুডের মতো নিষিদ্ধ সংগঠনকেও লালন পালন করছে তারা। কাতার একটি মুখোশধারী রাষ্ট্রের নাম। যারা প্রকাশ্যে ইউরোপে খেলাধূলার পৃষ্ঠপোষকতা করে। আবার গোপনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে অস্থিরতা ছড়িয়ে দিতে বিশেষ মিশনে লিপ্ত থাকে। গণতন্ত্রহীন এই রাষ্ট্রের তত্ত্বাবধানে যেসব উগ্রবাদী গোষ্ঠী বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পরিচালিত করে, তারা কোনো না কোনোভাবে রাজকীয় পরিবারের সঙ্গে সম্পৃক্ত।
এমনই একটি ছোট্ট উদাহরণ হলো- খালিদ শাইখ মোহাম্মদ। সে ১৯৯২ থেকে ১৯৯৬ সালে কাতারে ছিল। সেখানকার পানি মন্ত্রণালয় থেকে বেতন পেতো। তাকে থাকার জন্য কাতারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে একটি অ্যাপার্টমেন্ট দেওয়া হয়েছিল। সেখানে থাকার সময়, সে শুধু আমেরিকার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে বোমা হামলাই নয়, অন্যান্য অনেক হামলার সঙ্গেও সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিল।
হাজার হাজার গোপনীয় দলিলপত্র, ব্যাংক ডকুমেন্টস ও ইমেইল আদান-প্রদান থেকে জানা যায় যে, কাতারের রাজ পরিবার ও আলজাজিরা ইউরোপজুড়ে উগ্রবাদী সংগঠনগুলোর বিশাল নেটওয়ার্কের জন্য এখন প্রচুর অর্থ সংস্থানের কর্মকাণ্ড করে থাকে।
বিস্তারিতঃ https://www.facebook.com/DhakaTelevision1971/videos/270685701094898


আরও সংবাদ