রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

জামায়াতের লবিস্ট বেনকিনের সফর নিয়ে নানা প্রশ্ন!

প্রতিবেদক:
আপডেট : মঙ্গলবার, ৬ মার্চ, ২০১৮

সম্প্রতি মায়ানমার রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্টারি দলকে ভিসা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। অথচ “বাংলাদেশে জাতিগত শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত আছে” – এমন বায়বীয় অভিযোগের ভিত্তিকে লিখিত একটি বইয়ের লেখক এবং বিএনপি জামাতের লবিস্ট রিচার্ড বেনকিন সরকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে আবার বাংলাদেশে এসেছেন। ড. রিচার্ড এল বেনকিন, ইসরাইলপন্থী মার্কিন সমাজকর্মী ও মোসাদ প্রতিনিধি। ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় প্রচার প্রচারণাকে কেন্দ্র করে তার সকল কর্মকাণ্ড পরিচালিত। তিনি নিজেকে দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষজ্ঞ বলে দাবি করেন। তবে তার কর্মকাণ্ড মূলত ভারত ও বাংলাদেশ কেন্দ্রিক। ইন্টারফেইথ নামে তার একটি সংগঠন আছে যার মাধ্যমে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্যের কথা বললেও তিনি কট্টরপন্থি ধারার সাথে যুক্ত। Infidel Liberation Front নামক একটি এন্টি মুসলিম সংগঠনের সাথেও যুক্ত।
প্রশ্ন আসতে পারে কেন তার এই কার্যক্রম! বেনকিনের সকল কর্মকাণ্ড ইসরাইলের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট। বাংলাদেশ ও ভারতে এ স্বার্থ নিশ্চিত করতে যা করা প্রয়োজন সে তা-ই করছে। ভারত নিজেদের বৃহত্তর স্বার্থ সম্পর্কে সচেতন হলেও বাংলাদেশের নেতাদের কাছে দেশ ও নৈতিকতার চেয়ে ব্যক্তি ও দলীয় স্বার্থ বড় হওয়ার কারণে বিএনপি-জামায়াত অবিবেচকের মত বেনকিনের সহযোগিতা পেতে নিজেদের উজার করে দিয়েছে। এ কারণেই গত বছর ইসরাইলের সংবাদপত্রে “বাংলাদেশে ইসরাইলের স্বীকৃতির জন্য তারেককে প্রয়োজন” – এই মর্মে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।
বেনকিনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ বিরোধী অপপ্রচার, রাষ্ট্রদ্রোহিতা ও কথিত সংখ্যালঘু নির্যাতনের নামে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে নির্লজ্জভাবে অবস্থান নেয়ার পরও ২০১৩ সালে বিনা বাধায় বাংলাদেশ সফর করেছে। তিনি এবার রোহিঙ্গাদের সহমর্মিতা প্রকাশে বাংলাদেশে সফররত মার্কিন উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড্যানিয়েল এন. রোসেনব্লু এর সাথে এসেছেন। তিনি একদিকে ভারতে আরএসএসের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিরোধী জনমত গড়ে তুলতে কাজ করছে। অন্যদিকে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত জেলাগুলোতে ঘুরে উস্কানি দিয়ে হিন্দুদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টির লক্ষ্যেও কাজ করছে।
জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা
যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশে হরকাতুল মুজাহিদ আল ইসলামী (হুজি)কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করার পর ২০০৮ সালে আফগানিস্তানের যুদ্ধ ফেরত কয়েকজনের নেতৃত্বে বাংলাদেশে গঠিত হয় ইসলামিক ডেমোক্রেটিক পার্টি অব বাংলাদেশ (আইডিপি)। মুফতি হান্নানের এক সময়ের সহযোগি শেখ আবদুস সালাম ও কাজি আজিজুল হক এর নেতৃত্ব দিলেও মূলত এ সংগঠন পরিচালনার মূল ব্যক্তি ছিলেন মুসলিম জিওনিস্ট দাবিদার সালাউদ্দিন শোয়েব চৌধুরী এবং রিচার্ড বেনকিন।
http://www.thedailystar.net/news-detail-57036
বিএনপি-জামায়াতের লবিস্ট বেনকিন
২০০৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর শমসের মুবিন চৌধুরীর উদ্যোগে মাসে পাঁচ হাজার ইউএস ডলারের চুক্তিতে অনির্দিষ্টকাল মেয়াদের জন্য বিএনপির লবিস্ট নিয়োগ দেয়া হয় মোসাদ সমর্থনপুষ্ট আমেরিকান ইসরায়েল পাবলিক এ্যাফেয়ার্স কমিটি (AIPAC) এর প্রধান সংগঠক ড. রিচার্ড এল. বেনকিনকে। ওয়াশিংটন গ্রুপের পক্ষে এ চুক্তিতে বেনকিনের পক্ষে স্বাক্ষর করেছিলেন জন ডি রাফায়েলি, এবং বিএনপির পক্ষে শমশের মবিন চৌধুরী ও লুৎফুজ্জামান বাবর। সরকারী কোষাগার থেকে এই লবিস্ট ফার্মকে ফী পরিশোধ করা হলেও চুক্তির বিষয়টি লোকচক্ষুর অন্তরালে রাখা হয়। ১/১১ ও পরবর্তি রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে বেনকিনের বাংলাদেশ কেন্দ্রিক কার্যক্রম ছিল আফগান ফেরত বাংলাদেশী যোদ্ধাদের সাথে সংশ্লিষ্ট। ২০১১ সালে বিএনপির পক্ষে এবং ২০১২ সাল থেকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ইস্যুতে জামায়াতের পক্ষে আন্তর্জাতিক লবিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করে।
বেনকিনকে লবিস্ট নিয়োগ:
http://archive.thedailystar.net/2006/04/10/d6041001033.htm
 
বাংলাদেশে বেনকিনের সহযোগি কারা?
বেনকিনের সহযোগীদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, ভারতের হিন্দু সংহতির প্রদ্বীপ্তানন্দ মহারাজ ও তপন ঘোষ, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের প্রবীন তোগড়িয়া, সুব্রামানিয়াম স্বামী, বাংলাদেশের ড. ইউনুস, ডেভিড বার্গম্যান, সালাউদ্দিন শোয়েব, অ্যাডভোকেট রবীন্দ্র ঘোষ ও রানা দাস গুপ্ত।
বাংলাদেশের দরজা ইসরাইলিদের জন্য খুলে দেয়া হবে
http://www.ittefaq.com.bd/national/2016/05/09/67251.html
বেনকিনের প্রতারণার কাহিনী
https://www.rightsidenews.com/2012/09/26/richard-benkin-promoter-of-the-bangladeshi-fake-muslim-zionist-has-a-history-of-deception/
ভারতের সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেছিলেন, বাংলাদেশের এক তৃতীয়াংশ জনগোষ্ঠি ভারতে অবৈধভাবে বসবাস করছে তাই দেশের এক তৃতীয়াংশ ভারতকে দেয়া উচিত। তার মন্তব্যের পর ভারতেই এর বিরোধিতা হয়। কাণ্ডজ্ঞানহীন মন্তব্য বলে উল্লেখ করে কংগ্রেস, অল ইন্ডিয়া ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট সহ অনেক নেতা।
সমালোচনার মুখে সুব্রামানিয়াম বলেন, এটা তার ব্যক্তিগত মতামত, দলের নয়।
http://thedailynewnation.com/news/10013/bjp-leader-wants-bd-land-as-compensation-for-influx.html
রিচার্ড বেনকিন ইন্টারফেইথ নামে সংগঠন পরিচালনা করে। সুব্রামানিয়াম এবং বেনকিন দুজনই চরম মুসলিম-বিদ্বেষী।
সুব্রামানিয়ামকে নিয়ে বেনকিনের স্তুতিবাচক লেখা:
https://interfaithstrength.blogspot.com/2012/07/dr-subramanian-swamy-man-to-emulate.html
ড. ইউনুস, শোয়েব ও বেনকিনের গীতবিতান এক সাথে
http://www.canadafreepress.com/2006/mathur110506.htm
রিচার্ড বেনকিনের আ.লীগ বিরোধী লেখা:
https://interfaithstrength.blogspot.com/2011/07/bangladesh-awami-league-bares-anti.html
সালাউদ্দিন শোয়েব বিডিআর মিউটিনি সহ সেনাবাহিনীকে আ.লীগের বিরুদ্ধে উস্কানি দেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেছিল।
http://www.rightsidenews.com/2012092630980/editorial/us-opinion-and-editorial/richard-benkin-promoter-of-the-bangladeshi-fake-muslim-zionist-has-a-history-of-deception.html
শোয়েব-বেনকিনের মিথ্যাচার সম্পর্কে পড়ুন: http://archive.thedailystar.net/forum/2009/june/devi.htm
সুব্রামানিয়াম স্বামী এবং রিচার্ড বেনকিনের যৌথ উদ্যোগে বাঁশের কেল্লার ছবি নিয়ে কিভাবে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে সরকারকে অস্থিতিশীল করতে চেয়েছে তার প্রমাণ দেখতে পারেন এখানে।
http://www.truthofgujarat.com/dr-subramanian-swamy-stop-spreading-communal-hatred-falsification-information/
সালাউদ্দিন শোয়েব চৌধুরীর প্রতারণা ও ভণ্ডামি
http://www.newenglishreview.org/Brenda_West/Unmasking_A_False_Friend_of_the_West:_Salah_Uddin_Shoaib_Choudhury/
যারা হিন্দুবিরোধী হয়ে মুসলিমদের উস্কানি দেয় আর যারা মুসলিমবিরোধী হয়ে হিন্দুদের উস্কানি দেয় উভয়েই যদি একই সুতোয় গাথা হয় তাহলে সেখানে শুধু প্রতারণা ও ভণ্ডামী থাকে না, দেশ ও জনগণের জন্য তা অশনি সংকেত বয়ে আনবে।


এ বিভাগের আরও সংবাদ