বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন

সেনা ও নৌবাহিনীর একাধিক পদ মর্যাদার উন্নতিতে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ১৮ মার্চ, ২০১৮

প্রতিরক্ষা বাহিনীকে শক্তিশালী করতে ফোর্সেস গোল-২০৩০ বাস্তবায়ন করছে সরকার। ফোর্সেস গোল বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সেনাবাহিনী এবং নৌবাহিনীর একাধিক পদ মর্যাদার উন্নতি করা হচ্ছে। পাশাপাশি সেনাবাহিনীর ত্রিশাল এবং নৌবাহিনীর খুলনা অঞ্চলের কমফ্লোট ওয়েস্ট (Commander Flotilla West) এর নতুন সাংগঠনিক কাঠামো গঠন করা হচ্ছে।

বিষয়গুলো এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নীতিগত অনুমোদন করেছেন। আইন অনুযায়ী, চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে এগুলো পাঠানো হয়েছে। প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির ৫ম বৈঠকটি রোববার (১৮ মার্চ) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, নৌ-বাহিনীর খুলনা নেভাল এরিয়ার (কমখুল) কমান্ডারের পদবী কমডোর থেকে রিয়াল এডমিরাল, নৌবাহিনীর বাজেট পরিচালকের পদবী ক্যাপ্টেন থেকে কমডোর পদে উন্নীত করার সিদ্ধন্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া সেনাবাহিনীর স্টেশন সাপ্লাই ডেপো (এসএসডি) রাজেন্দ্রপুরকে তৃতীয় শ্রেণী থেকে দ্বিতীয় শ্রেণীতে উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সেনাবাহিনীর জন্য ময়মনসিংহের ত্রিশালে মিলিটারি ফার্ম গঠনের জন্য রাজস্ব খাতে ১৯৫টি পদ সৃষ্টির সিদ্ধান্ত হয়েছে। ত্রিশালে মিলিটারি ফার্মের জন্য ১৫টি বিভিন্ন ধরণের যানবাহন, বিভিন্ন ধরনের ২৪টি সরঞ্জাম ও ১ হাাজর পাঁচ শ টি পশু সাংগঠনিক কাঠামোর মধ্যে অন্তর্ভূক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া নৌবাহিনীর খুলনা অঞ্চলের কমফ্লোট ওয়েস্ট এর নতুন সাংগঠনিক কাঠামো গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, সেনা ও নৌবাহিনীর বিভিন্ন বিভাগের একাধিক পদের পদবীর মর্যাদার উন্নতির বিষয়ে এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন মিলেছে। অর্থ এবং জন-প্রশাসন মন্ত্রণালয়েরও অনুমতি পাওয়া গেছে। এখন শুধু প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির অনুমোদন প্রয়োজন। যা রবিবারের বৈঠকে অনুমোদন পেতে পারে।

সেনাবাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. মইনুল ইসলাম গত জানুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সরকারি পত্রে বলেন, নৌবাহিনীর দুইটি পদ যথাক্রমে কমডোর কমান্ডিং বিএন ফ্লোটিলা (কমব্যান) ও কমডোর কমান্ডিং খুলনা (কমখুল) এর পদবী একই সময়ে সর্বোচ্চ একজনকে রিয়ার এডমিরাল পদে পদোন্নতি দেওয়ার শর্তে নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। দুইজনের মধ্যে কমব্যানকে রিয়াল এডমিরাল পদে উন্নীত করা হবে। বর্তমানে কমব্যান ও কমখুল এর সার্বিক কর্মকান্ড এবং দায়িত্ব সমপর্যায়ের। তাই এই দুইটি গুরুত্বপূর্ণ পদের পদবী একই হওয়া উচিত।

ওই পত্রে আরও বলা হয়, প্রতিরক্ষা ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেটের কাজে নিয়োজিত তিন বাহিনী, আন্তবাহিনী এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতায় সংশ্লিষ্ট পরিচালকের পদের অবস্থান বিগ্রেডিয়ার বা এয়ার কমডোর বা যুগ্ম-সচিব পদমর্যাদার। শুধুমাত্র নৌবাহিনীর পরিচালক বাজেটের পদবী কর্ণেল বা ক্যাপ্টেন মর্যাদার। অন্যদিকে, অর্থ বা প্রতিরক্ষাসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ডেস্ক অফিসাররা উপসচিব থেকে পদোন্নতি পেয়ে যুগ্ম-সচিব মর্যাদায় উন্নীত হয়েছে। এক্ষেত্রে নৌবাহিনীর বৃহত্তর স্বার্থ রক্ষা এবং যথাযথ বাজেট পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রাপ্তি নিশ্চিত বা ত্বরান্বিত করতে পরিচালক নৌ বাজেটের পদবী ক্যাপ্টেন থেকে কমডোর পদে উন্নীত করা প্রয়োজন।


আরও সংবাদ