মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৬:০৮ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
৫০০ গৃহকর্মী ও ৮১ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার ৭ মে – শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন : গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার দিবস যে যেখানে আছে সেখানেই ঈদ : ‘নবসৃষ্ট অবকাঠামো ও জলযান’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী জাহাঙ্গীরনগরের দেয়ালগুলো যেভাবে রঙিন হলো সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনায় গ্রেফতার ২ : নেপথ্যে হেফাজত অনিয়মের বিরুদ্ধে সাবধান করলেন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আল্টিমেটামের পরেই হেফাজতের তাণ্ডব সারদেশে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন শ্রমিক, ইমাম, ভ্যানচলক : আশ্রয়হীদের জন্য সরকারি ঘর উগ্রতার দায়ে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হল কঙ্গনার টুইটার অ্যাকাউন্ট বিচ্ছেদের আগেই সম্পত্তি ভাগাভাগির চুক্তি !

মিজানুর রহমান মিনুর বক্তব্য ১৫ আগস্টের স্বীকারোক্তি : ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম

এইচ এম সাদ্দাম হোসেন
আপডেট : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নারকীয় হত্যাযজ্ঞের পুনরাবৃত্তি কোন সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ চাইতে পারে না।

তাই আমি রাজশাহীতে ১৫’ই আগস্টের পুনরাবৃত্তি চাওয়া বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনুকে অসুস্থই বলবো।

 

দ্বিতীয়ত, বিএনপি যদি এই বক্তব্যের কারণে মিনু’র বিরুদ্ধে কোন সাংগঠনিক ব্যাবস্থা না নেয় তাহলে এতদিন অস্বীকার করে আসলেও এই বক্তব্যে সমর্থন দেওয়ার মাধ্যমে বিএনপি’র ৭৫’র ১৫’ই আগস্টের ঘৃণিত হত্যাকাণ্ডের দায় নেওয়া হবে।

১৫’ই আগস্টের পরোক্ষ স্বীকারোক্তিই এটি। যদিও ১৫ আগস্টের সাথে খুনী জিয়ার সম্পৃত্ততা ইতিমধ্যেই প্রমাণিত।

এই ধরনের মাথামোটা বক্তব্য সুস্থ্য ধারার প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক রাজনীতির জন্য থ্রেট। এই ধরনের বক্তব্য একজন নেতার অপরিপক্কতা,অযোগ্যতা, দেউলিয়াপণা আর জাতির প্রতি দায়সারা ভাবের প্রমাণই বহন করে।

বিএনপি, মিনুর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা না নিলে ভবিষ্যৎ এ, এর জন্য প্রজন্মের সামনে বিএনপিকে জবাবদিহি করতে হবে। বিএনপির জন্য সুপারিশ হলো, এই দলটি যত দ্রুত গুজব নির্ভর হুজুগের রাজনীতি থেকে বের হবে ততই তাদের জন্য মঙ্গল। সহিংসতার পথ থেকে সড়ে এসে সুস্থ ধারার রাজনীতির চর্চ্চা এই দলটিকে হয়ত যাদুঘরে সংগ্রহশালা হওয়া থেকে বাঁচাতে পারে।

 

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ যেমন বুকের রক্ত ঠেলে দিয়ে স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনতে জানে তেমনই দেশ, স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধু আর দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রশ্নে রক্ত জড়াতেও জানে। ছাত্রলীগের একজন কর্মী বেঁচে থাকতে শেখ হাসিনার গায়ে আচর দেয় এমন শক্তির বিএনপির মিজাইন্না কেন গোটা পৃথিবীতে নেই।

টয়লেটে বসে অন্ধাকারাচ্ছন্ন রাজনীতি আর ষড়যন্ত্র বাদ দিয়ে বুকের পাটা থাকলে রাজপথে আসো, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ভাই ও সময়ের সেরা,বিচক্ষণ ও সুযোগ্য সাধারণ সম্পাদক আমার নেতা জনাব লেখক ভট্টাচার্য দাদা’র নেতৃত্বে, ছাত্রলীগ তোমাদের মোকাবেলা করতে সর্বদা যেগে আছে।

 

লেখকঃ এইচ এম সাদ্দাম হোসেন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সরকারি বাঙলা কলেজ ছাত্রলীগ।


আরও সংবাদ