বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:১০ পূর্বাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
গার্ডিয়ানে প্রকাশিত শেখ হাসিনার নিবন্ধ: ‘আ থার্ড অফ মাই কান্ট্রি ওয়াজ জাস্ট আন্ডারওয়াটার। দ্য ওয়ার্ল্ড মাস্ট অ্যাক্ট অন ক্লাইমেট’ হেফাজতের কর্তৃত্ব যাচ্ছে দেওবন্দের কাফের ঘোষিত জামায়াতের কব্জায় ! অনলাইনে মিলছে টিসিবির পেঁয়াজ আজ টিউলিপ সিদ্দিকের জন্মদিন বাংলাদেশের সঙ্গে রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র প্রধানমন্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোন ফ্রন্টিয়ার, ইমার্জিং ও ডেভেলপড মার্কেট রিটার্নে সবার ওপরে বাংলাদেশ মুজিববর্ষে প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা হাসি ফিরেছে পাট চাষিদের মুখে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার বিশ্বসেরা : ব্লুমবার্গের প্রতিবেদন

গুম হওয়া বিএনপি নেতা রামুতে রোহিঙ্গা নিয়ে ফুর্তিতে ছিলেন

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৫ এপ্রিল, ২০১৮

১৯ দিন নিখোঁজ থাকা খুলনার বিএনপি নেতা নজরুলের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক অপহরণের অভিযোগ করা হয়েছিল। গতকাল তাকে রামুতে এক রোহিঙ্গা নারী সহ আটক করেছে পুলিশ।
খুলনা জেলা বিএনপির সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম মোড়লের এক রোহিঙ্গা নারীর সাথে কক্সবাজারের রামুতে অবস্থান করার তথ্য নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, গত ১৭ মার্চ বিকেলে নজরুল ইসলাম মোড়ল ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরঘোনা ইউনিয়নের বেতাগ্রামের বাড়ি থেকে আঠারো মাইল বাজারে যান। সেখান থেকে একটি মোটরসাইকেল ভাড়া করে তিনি যশোরের কেশবপুরের মঙ্গলকোট এলাকায় ডাক্তার দেখানোর কথা বলে যান। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। নজরুলের সন্ধান না পাওয়ায় সেদিন রাতেই তার স্ত্রী তানজিলা বেগম ডুমুরিয়া থানায় একটি জিডি করেন।

পরিবার ও বিএনপির নেতাকর্মীদের অভিযোগ ছিলো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে গুম করেছে। শুরু থেকেই এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে ডুমুরিয়া থানার ওসি হাবিল হোসেন বলেছিলেন, এটি অপহরণের কোনো ঘটনা নয়।

ডুমুরিয়া থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইফতেখার হোসেন বলেন, নিখোঁজের দিনই নজরুল তার মোবাইল বন্ধ করে দিয়েছিলেন। ১৪ দিন পর কিছু সময়ের জন্য মোবাইল চালু করা হয়েছিল। সে সময় তার অবস্থান ছিল রামুতে। রামুতে অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, জুলহাস মন্ডল নামে এক ব্যক্তির বাসায় রোহিঙ্গা নারী সহ বসবাস করছেন নজরুল।
রামুর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নজরুল এর আগে রোহিঙ্গাদের সহায়তার জন্য কয়েকবার এসেছিল। তখন থেকে কয়েকটি রোহিঙ্গা পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা করতে থাকেন। পরবর্তিতে একটি রোহিঙ্গা পরিবারের জন্য বাড়ি ভাড়া নেন এবং মমতাজ বেগম নামে এক রোহিঙ্গা নারীর সাথে একটি কক্ষে অবস্থান করছিলেন।

রোহিঙ্গা নারী নিয়ে বসবাস সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে নজরুল তাকে বিয়ে করেছেন বলে দাবি করেন। রোহিঙ্গা বিবাহ করা নিষিদ্ধ বলে কলেমা পড়ে বিয়ের কথা জানান তিনি।

জানা গেছে আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে নজরুলকে খুলনায় আনতে ডুমুরিয়া থানা পুলিশের একটি দল রামুর উদ্দেশে রওনা দিয়েছে।

সূত্র: অপরাধ কণ্ঠ


আরও সংবাদ