বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:১১ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
প্রাথমিকের সব শিক্ষক ১৩তম গ্রেডে: জানিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয় জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে যাবে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা চিঠি ঢাবির শতবর্ষ উপলক্ষে আজ আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী চাকরিচ্যুত প্রবাসীদের জন্য সরকার বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে : প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন ২০৩৫ সাল নাগাদ বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ২৫তম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ: প্রধানমন্ত্রী টিকা রাখা হচ্ছে তেজগাঁওয়ের ইপিআই স্টোর ভারতের উপহারের টিকা এখন দেশের মাটিতে। “বিএনপিকে টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে” শহীদ আসাদ গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন : প্রধানমন্ত্রী

কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে নিয়ে কথিত বিরোধীদের গুজব বনাম বাস্তবতা ও নৈতিকতা

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২০

গোলাম মর্তুজার মতো যেসব সাংবাদিকদের সত্যান্বেষী হিসেবে ভাবমূর্তি ছিল, যাদের কথাকেই মানুষ কোনো গণমাধ্যমের সূত্র অপেক্ষা বেশি গুরুত্ব দিতো, তারা আজ বিরোধিতার জন্য সরকারের বিরোধিতা করে গত কয়েক বছরে নিজেদের নূন্যতম গ্রহণযোগ্যতাও হারিয়ে ফেলেছে। এখন তাদের সত্যি কথাও কেউ বিশ্বাস করার আগে যাচাই করার তাগিদ অনুভব করে। এ ধারায় আগামীতে হয়তো সেটিও করার প্রয়োজন বোধ করবে না।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য শুরুতেই কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালকে প্রস্তুত করা হয় ৷ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সেবায় অক্লান্তভাবে কাজ করছেন কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, পিপিই ও এন নাইনটি ফাইভ মাস্কসহ সকল ব্যবস্থাই রয়েছে হাসপাতালটিতে ৷

সম্প্রতি এই হাসপাতালের খাবার ব্যবস্থা নিয়ে নার্স ও কর্মীদের অসন্তুষ্টির কথা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছে বেশ কিছু অসাধু ব্যক্তি। এদের মধ্যে গোলাম সাংবাদিক মোর্তাজা একজন। সরকারবিরোধী বা অহেতুক যেকোনো সমালোচনায় তার সবসময়ই সরব উপস্থিতি এবং বিচরণ পরিলক্ষিত। তিনি তার ফেইসবুক আইডি থেকে কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের খাবার ব্যবস্থাপনা ও মান নিয়ে একটি বানোয়াট ও মনগড়া স্ট্যাটাস দেন। যেখানে তিনি উল্লেখ করেন হাসপাতালের নার্সরা সময়মত খাবার পাচ্ছেন না। তার এই তথ্য সম্পূর্ণ ভুয়া ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন হাসপাতালের কর্মীরা। তারা জানায় খাবার নিয়ে কোনো সমস্যা নেই বরং কতৃপক্ষ তাদের পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছে এই মহামারীর সময়।

এদিকে হাসপাতালের খাবারের মানসম্মত নিরাপদ খাবারের পরিবেশন ও এর বৈচিত্র্য বোঝাতে ছবি ও ভিডিও শেয়ার করে নিজের ফেসবুকে খাবারের মানের আসল চিত্র ফুটিয়ে তোলার পাশাপাশি এর প্রশংসাও করেছেন আইনজীবী আহসান ভূঁইয়া।

গোলাম মোর্তাজার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত এই অপপ্রচার বা মিথ্যা তথ্য আমলে নেয়া বুদ্ধিমানের কাজ নয়। দেশের মানুষের মাঝে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে এই ধরনের হলুদ সাংবাদিক নিজ স্বার্থ হাসিলের পাঁয়তারা করছে। বিএনপি জামায়াতের এজেন্ট হিসেবে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই করোনার এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে গোলাম মোর্তোজা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সকল গুজব এড়িয়ে চলুন। নিজে ভালো থাকুন, অপরকে ভালো রাখুন।


আরও সংবাদ