মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৪:৫৩ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
৫০০ গৃহকর্মী ও ৮১ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার ৭ মে – শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন : গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার দিবস যে যেখানে আছে সেখানেই ঈদ : ‘নবসৃষ্ট অবকাঠামো ও জলযান’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী জাহাঙ্গীরনগরের দেয়ালগুলো যেভাবে রঙিন হলো সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনায় গ্রেফতার ২ : নেপথ্যে হেফাজত অনিয়মের বিরুদ্ধে সাবধান করলেন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আল্টিমেটামের পরেই হেফাজতের তাণ্ডব সারদেশে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেলেন শ্রমিক, ইমাম, ভ্যানচলক : আশ্রয়হীদের জন্য সরকারি ঘর উগ্রতার দায়ে স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হল কঙ্গনার টুইটার অ্যাকাউন্ট বিচ্ছেদের আগেই সম্পত্তি ভাগাভাগির চুক্তি !

আর্ত মানবতার সেবায় ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ

নাজিম আজাদ
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে নানা রকম সেবা নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে ময়মনসিংহ ছাত্রলীগ।

নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রীর পাশাপাশি, সেহরির খাবার, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ, বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা, নিত্য প্রণ্যের ফ্রি ‘হোম ডেলিভারি সার্ভিস’ এবং রোগীদের জন্য ‘জয় বাংলা বাইক ও প্রাইভেটকার সার্ভিস’ নিয়ে এসেছে সরকারপন্থি ছাত্র সংগঠনটি।

চালু হয়েছে দুটি হট লাইন নম্বর। এই নম্বরে কল করলেই সেবা পৌঁছে দেবে ছাত্রলীগের কর্মীরা। নম্বর দুটি হলো: ০১৭১২ ৮৮১১৫৪ ও ০১৭১১ ৫৭৪৩৬৩ ।

ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর ছাত্রলীগ নেতা নওশেল আহমেদ অনি এই কর্মযজ্ঞের উদ্যোক্তা।

অনি বলেন, ‘ময়ময়সিংহ সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু ভাইয়ের সার্বিক সহযোগিতায় এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ভাইয়ের দিকনির্দেশনায় ময়ময়সিংহ মহানগর ছাত্রলীগের ভাইদের নিয়ে গতবছরের করোনার শুরু থেকে অসহায় মানুষের পাশে আছি।

 

 

‘এখন যেহেতু লকডাউনের কারণে দরিদ্র শ্রমজীবী মানুষ নানা কষ্টে আছে, তাই তাদের কথা চিন্তা করে আমরা প্রতিদিন ৩০০ জনকে বিনামূল্যে ইফতারি ও সেহরি খাবারের ব্যবস্থা করেছি।

‘লকডাউনে যারা বাসা থেকে বের হতে পারছেন না তারা যদি আমাদের কল করে জানান, তাহলে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য তাদের বাসায় পৌঁছে দিচ্ছে মহানগর ছাত্রলীগ কর্মী ভাইয়েরা।’

এই ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ‘কোভিড আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেনের প্রয়োজন হলে তাৎক্ষণিকভাবে ফ্রি অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। রোগীকে হাসপাতালে নেয়ার জন্য পাঁচটি মোটরসাইকেল ও দুইটি প্রাইভেটকারের মাধ্যমে সেবা নিশ্চিত করা হচ্ছে।’

 

 

ছাত্রলীগের এই উদ্যোগের প্রশংসা করে সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেন, ‘করোনা কালীন সময়ে নিম্ন আয়ের মানুষের সেবা করা নিঃসন্দেহে ভালো কাজ। এতে নিজেদেরও ঝুঁকি বাড়ে। তবে রাজনীতি করতে এলে নিজের চেয়ে মানুষের কল্যাণের কথাই বেশি ভাবতে হয়।’

ছাত্রলীগ কর্মী মোহাইমিনুল হক প্রিন্স বলেন, ‘করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এই সময়টায় এমনিতেই অফুরন্ত সময় আছে হাতে। অসহায় মানুষের সেবা করতে পেরে নিজের কাছে ভালো লাগছে। এভাবে আগামীতেও মানুষের সেবা করতে চাই।’


আরও সংবাদ