মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৫৭ পূর্বাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
শেখ হাসিনাকে জন্মদিনে মোদী পাঠালেন ফুল, চীনের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন পঁচাত্তরের খুনিদের দায়মুক্তি অধ্যাদেশ “ধর্ষিত” মামুনের স্ক্রিনশপ জালিয়াতি ফাঁস : ইলিয়াস সহ সুশীলদের কটাক্ষ জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ : বিশ্ব সভায় বাংলা ভাষার প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিনিধিত্ব গার্ডিয়ানে প্রকাশিত শেখ হাসিনার নিবন্ধ: ‘আ থার্ড অফ মাই কান্ট্রি ওয়াজ জাস্ট আন্ডারওয়াটার। দ্য ওয়ার্ল্ড মাস্ট অ্যাক্ট অন ক্লাইমেট’ হেফাজতের কর্তৃত্ব যাচ্ছে দেওবন্দের কাফের ঘোষিত জামায়াতের কব্জায় ! অনলাইনে মিলছে টিসিবির পেঁয়াজ আজ টিউলিপ সিদ্দিকের জন্মদিন বাংলাদেশের সঙ্গে রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র প্রধানমন্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোন

বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের বড় গ্রাহক হবে দেশী চ্যানেলগুলো: মোজাম্মেল বাবু

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ১৩ মে, ২০১৮

মহাকাশে প্রেরিত বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ থেকে সিগনাল পাওয়া গেছে। বাংলাদেশের জাতীয় গৌরবের অংশ হিসেবে এর নানাবিধ উপযোগিতার জন্য সকলের আগ্রহ প্রতীয়মান হচ্ছে।
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটকে নিজের বাড়ি বলে মন্তব্য করে গ্রাহক হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বেসরকারি টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন বা অ্যাটকোর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং একাত্তর টিভি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল হক বাবু।

বিবিসিতে দেয়া সাক্ষাতকারে মোজাম্মেল হক বলেন, “বিদেশি স্যাটেলাইট ভাড়া বাবদ বাংলাদেশের প্রতিটি টেলিভিশন স্টেশন মাসে ২৪ হাজার ডলার খরচ করে। সেই হিসেবে বাংলাদেশের সবগুলো টেলিভিশন চ্যানেলের বিদেশি স্যাটেলাইট ভাড়া বাবদ প্রতি মাসে মোট খরচের পরিমাণ প্রায় ১৫ লাখ ডলার। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের কারণে এ টাকা দেশেই থাকবে।”

তিনি জানান, বর্তমানে বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলো অ্যাপস্টার সেভেন নামের একটি বিদেশি স্যাটেলাইট ব্যবহার করছে।

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহারে নিজের আগ্রহ প্রকাশ করে মোজাম্মেল হক বলেন, “আমরা অবশ্যই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সেবা নেব। যেমন ধরুন, ভাড়া বাড়িতে থাকলাম। কিন্তু বাড়িটা কখনো আমার হলো না। কিন্তু বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে ভাড়া দিলে সেটি থেকে বাংলাদেশের আয় হবে।”

বাংলাদেশের চ্যানেলগুলোর জন্য বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আদর্শ হবে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “তুলনামূলকভাবে সাশ্রয়ী হওয়ার কারণে বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলো বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট ভাড়া নেবে ও বড় গ্রাহক হবে।”

একই সঙ্গে ডিশ, ইন্টারনেট ও কলিং- এ তিনটি সেবা একসাথে ডিটিএইচ এর মাধ্যমে পাওয়া যাবে বলে সেবার মান উন্নয়নের পাশাপাশি বাংলাদেশ আর্থিকভাবে লাভবান হবে বলে সংশ্লিষ্ট সকলে আশাবাদী।


আরও সংবাদ