বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:২১ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
প্রাথমিকের সব শিক্ষক ১৩তম গ্রেডে: জানিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয় জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে যাবে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা চিঠি ঢাবির শতবর্ষ উপলক্ষে আজ আন্তর্জাতিক সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী চাকরিচ্যুত প্রবাসীদের জন্য সরকার বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে : প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন ২০৩৫ সাল নাগাদ বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ২৫তম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ: প্রধানমন্ত্রী টিকা রাখা হচ্ছে তেজগাঁওয়ের ইপিআই স্টোর ভারতের উপহারের টিকা এখন দেশের মাটিতে। “বিএনপিকে টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া হবে” শহীদ আসাদ গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন : প্রধানমন্ত্রী

ইফতার পার্টিতে বি. চৌধুরীর প্রতি ২০ দলীয় নেতাদের ক্ষোভ

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : রবিবার, ২০ মে, ২০১৮

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি না করায় এবং তৃতীয় শক্তি উত্থান সম্পর্কে বক্তব্য দেয়ায় বি. চৌধুরীর বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতারা।

শনিবার ঢাকা লেডিজ ক্লাবে রাজনীতিবিদদের সম্মানে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে বিএনপি। এতে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব ও বর্তমানে বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি. চৌধুরী) ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পাশাপাশি বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে হতাশা ব্যক্ত করেন।
বি. চৌধুরী বলেন, বিএনপি কি নিশ্চয়তা দিতে পারবে যে ক্ষমতায় গেলে আর দুর্ণীতি করবে না? আমি জানি পারবে না।
তিনি দেশ রক্ষায় নতুন শক্তির প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন।
বিএনপি দুর্ণীতির কারণেই ক্ষমতা হারিয়েছে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ইফতার মাহফিলেই তার এ বক্তব্যের প্রতিবাদ জানায় বিএনপি জোটের শরিক লিবারেল ডোমেক্রেটিক পার্টির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাৎ হোসেন সেলিম।

তিনি বলেন, বি. চৌধুরী যখন বক্তব্য দেয়, তখনই আমি দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করেছি। সে পুরানো বেঈমান। আমার প্রতিবাদের বিষয়টি বিএনপির বরকত উল্লাহ বুলু, রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুসহ জোটের বেশ কয়েকজন নেতা লক্ষ্য করেছেন।

আমি বলছি, বি. চৌধুরীর মতো একজন রাজনীতিবিদ রাজনৈতিক মঞ্চে এসে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইবে না। এটা হতে পারে না। তিনি দুই দলের সমালোচনা করে নতুন শক্তির কথা বলেছেন। তার বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য। এতে আমরা ক্ষুব্ধ।

ন্যাপ মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া বলেন, বি. চৌধুরীর মতো একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ বিএনপির মঞ্চে এসে খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইবেন না, ভিন্ন শক্তি খুঁজবেন-আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। বয়স্ক মানুষ না হলে তাকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করতাম আমরা।

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) সভাপতি খন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা জাগো নিউজকে বলেন, বি. চৌধুরী গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক মঞ্চে এসে অগণতান্ত্রিক শক্তি খুঁজেছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেননি। তিনি তৃতীয় শক্তির কথা বলেছেন। তিনি রাষ্ট্রপতি ছিলেন তাই তাকে ক্ষমা চাইতে বলিনি। আমরা তার বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানাই।


আরও সংবাদ