1. অন্যরকম
  2. অপরাধ বার্তা
  3. অভিমত
  4. আন্তর্জাতিক সংবাদ
  5. ইতিহাস
  6. এডিটরস' পিক
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয় সংবাদ
  9. টেকসই উন্নয়ন
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. নির্বাচন বার্তা
  12. প্রতিবেদন
  13. প্রবাস বার্তা
  14. ফিচার
  15. বাণিজ্য ও অর্থনীতি

হবিগঞ্জের উৎপাদিত ধান যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়

ডেস্ক রিপোর্ট : ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম
মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪

হবিগঞ্জে উৎপাদিত ধানের চার-তৃতীয়াংশ পাইকার ও ফড়িয়াদের মাধ্যমে চলে যায় জেলার বাইরে। নৌ-আর সড়ক পথে প্রতিদিন আড়াই হাজার টন ধান চলে যায় আশুগঞ্জ ও উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। চাষিরা বলছেন, আর্থিক প্রয়োজনে মাঠ থেকেই বিক্রি করে দিতে হয় অধিকাংশ ধান। আর ব্যবসায়ীদের দাবি, জেলায় উন্নতমানের চালকল না থাকায় ধান পাঠানো হয় উত্তরবঙ্গে।

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জের কৃষক বেনু মিয়া। এবার ধান পেয়েছেন ৫শ’ মণের বেশি। কিন্তু খোরাকের জন্য মাত্র ৫০ মণ রেখে বাকি ধান মাঠ থেকেই বিক্রি করেছেন তিনি।

কৃষক বেনু মিয়া বলেন, ‘ধান বিক্রি করে দিয়েছি মাঠ থেকেই। ইরি ভালো হয়েছে শুধু ২৯ ধান একটু খারাপ হয়েছে।’

বেনু মিয়ার মতো অবস্থা হাওরের অধিকাংশ কৃষকের। বোরো মৌসুমের শুরু থেকে ধান কাটা পর্যন্ত যে টাকা খরচ হয় পুরোটাই আনতে হয় ঋণ করে। ধান কেটে প্রথমেই শোধ করতে হয় ঋণের টাকা। যে কারণে বছরের খোরাক রেখে বাকি ধান মাঠ থেকে বিক্রি করে দিতে হয় কৃষকদের।

আরেকজন কৃষক বলেন, ‘টাকার অভাব ও ঋণ পরিশোধ করার জন্য ক্ষেত থেকেই ধান বিক্রি করে দিতে হয় আমাদের।’

এরইমধ্যে জেলায় উৎপাদিত ধানের চার-তৃতীয়াংশ চলে গেছে পাইকার ও ফরিয়াদের হাতে। আর তাদের মাধ্যমে এসব ধান চলে যায় জেলার বাইরে। প্রতিদিন সড়ক পথে ২ হাজার টন ধান যাচ্ছে উত্তরের জেলা দিনাজপুর, নওগাঁ এবং বগুড়ায়। আর আজমিরীগঞ্জে তিনটি নৌ-ঘাট থেকে প্রতিদিন সারে ৫শ’ টন ধান যায় আশুগঞ্জ মোকামে। যার বাজার মূল্যে আড়াইশ কোটি টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, জেলায় উন্নতমানের চালকল না থাকা এবং উত্তরাঞ্চলে মোটা ধানের চাষ কম হওয়ায় হবিগঞ্জের ধানের বড় বাজার তৈরি হয়েছে উত্তরবঙ্গে। এছাড়া হবিগঞ্জে ধান রাখার মতো বড় কোন গোদাম না থাকাও এর বড় কারণ বলছেন ব্যবসায়ীরা।

ধান-চাল ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান মিজান বলেন, ‘প্রতিদিন প্রায় একশ’ গাড়ি ধান বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে। অটোমেটিক মেশিন না থাকায় বাহিরে কৃষকদের ধান বিক্রি করতে হয়।’

উত্তরবঙ্গে যাওয়া ধানের একটি অংশ আবার চাল হয়ে ফিরে আসে হবিগঞ্জে। এতে টনপ্রতি যুক্ত হয় ৫ হাজার টাকার অতিরিক্ত পরিবহন খরচ। যে অতিরিক্ত অর্থ নেয়া হচ্ছে ভোক্তার পকেট থেকে।


সর্বশেষ - জাতীয় সংবাদ

নির্বাচিত

গার্ডার চাপায় ৩ ঘণ্টা পড়ে ছিল ৫ মরদেহ

স্বাধীনতার জন্য নিবেদিত পালাকার, গ্রামীন শিল্পীদের রাষ্ট্রীয় সম্মান দেয়া হোক

প্রত্যাশার চেয়েও ভালো ভোট হয়েছে : প্রধান নির্বাচন কমিশনার

হাত কেটে আনার বিনিময়ে ২ লাখ টাকার ঘোষণা হেফাজতপন্থী ওয়ার্ড কাউন্সিলরের

যৌন হয়রানির অভিযোগে সামরিক-রাজকীয় উপাধি হারালেন ব্রিটিশ প্রিন্স

বিজয় দিবসের আগেই দিয়াবাড়ি-আগারগাঁও রুটে চলবে মেট্রোরেল

রাঙামাটিতে ১০০ কোটি টাকায় নির্মাণ হবে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার

বগুড়ায় আমন ধানের বাম্পার ফলন

‘স্মার্ট উন্নত বাংলাদেশ মডেল’ ও আমাদের অভীষ্ট

রস ছাড়াই ক্ষতিকর উপকরণে তৈরি হচ্ছে খেজুর গুড়