রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
পঁচাত্তরের খুনিদের দায়মুক্তি অধ্যাদেশ “ধর্ষিত” মামুনের স্ক্রিনশপ জালিয়াতি ফাঁস : ইলিয়াস সহ সুশীলদের কটাক্ষ জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ : বিশ্ব সভায় বাংলা ভাষার প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিনিধিত্ব গার্ডিয়ানে প্রকাশিত শেখ হাসিনার নিবন্ধ: ‘আ থার্ড অফ মাই কান্ট্রি ওয়াজ জাস্ট আন্ডারওয়াটার। দ্য ওয়ার্ল্ড মাস্ট অ্যাক্ট অন ক্লাইমেট’ হেফাজতের কর্তৃত্ব যাচ্ছে দেওবন্দের কাফের ঘোষিত জামায়াতের কব্জায় ! অনলাইনে মিলছে টিসিবির পেঁয়াজ আজ টিউলিপ সিদ্দিকের জন্মদিন বাংলাদেশের সঙ্গে রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র প্রধানমন্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোন ফ্রন্টিয়ার, ইমার্জিং ও ডেভেলপড মার্কেট রিটার্নে সবার ওপরে বাংলাদেশ

সিলেটে জামায়াতের প্রার্থী ঘোষণা: ভারত সফরকে কেন্দ্র করে ভাঙ্গন শুরু

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : বুধবার, ২০ জুন, ২০১৮

ভারত সফরকে কেন্দ্র করে সিলেট সিটি নির্বাচনে বিএনপিকে ছাড় দিচ্ছে না জামায়াত। রাজনৈতিক ও অতীতে অনুষ্ঠিত নির্বাচন নিয়ে সিলেট বিএনপির সঙ্গে মত বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায় এবার সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী দিচ্ছে জামায়াত। সম্প্রতি ভারত সফরকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধিতার কারণে নির্বাচনে জোট থেকে প্রার্থী দিলেও জামায়াত তাদের নিজেস্ব প্রার্থী দিবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সিলেট জামায়াতের শীর্ষস্থানীয় নেতারা কোনও অবস্থাতেই তারা এবার বিএনপিকে ছাড় দিতে নারাজ। এরইমধ্যে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সিলেটে নির্বাচন পরিচালনা কমিটিও গঠন করেছে জামায়াত।

মহানগর জামায়াতের আমির অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের পক্ষে নির্বাচন কমিশন থেকে মেয়র পদে মনোনয়ন ফরমও কিনে রেখেছে দলটি। গত সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও জামায়াতের সঙ্গে জোট গড়ে নির্বাচন করেছিল বিএনপি। তখন জামায়াত প্রার্থী দেয়নি। তারা বিএনপির সমর্থিত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচনি মাঠে সক্রিয় ছিল। ওই নির্বাচনে বিশেষ কারণে তারা বিএনপির সঙ্গে ঐক্য করেছিলেন বলে জানিয়েছেন জামায়াত নেতারা। কিন্তু উপজেলা ও পৌর নির্বাচনেও জামায়াত অনেক স্থানেই আলাদা প্রার্থী দিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।

দলীয় সূত্র জানায়, জামাত নেতাদের ফাঁসির বিষয়ে প্রথমে প্রতিবাদ করলেও পরবর্তিতে বিএনপির নীরবতা, নিজামী-মুজাহিদদের খালেদা জিয়া কর্তৃক আলেম ঘোষণা দেয়ার পরও জানাজায় দলীয়ভাবে অংশ না নেয়া এবং শোক প্রকাশ করা, জামাত সম্পর্কে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করা ও অঙ্গ সংগঠন মনে করা, ছাত্র শিবিরের বিরুদ্ধে ছাত্রদলের অধিকাংশ সমর্থন কর্তৃক ঘৃণা প্রকাশ এবং সর্বশেষ ভারত সফর করে ভারতের সহায়তা-সহানুভূতি কামনা করায় বিএনপিকে আলটিমেটাম দিতে সিলেট সিটি নির্বাচনকে টেস্ট কেস হিসেবে দেখছে জামায়াত।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘এবার কিছুতেই সিলেট সিটি নির্বাচন থেকে জামায়াত সরে দাঁড়াবে না। এরইমধ্যে আমাদের প্রার্থী ঠিক হয়ে গেছে। এবার মহানগর জামায়াতের আমির অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের মেয়র পদে নির্বাচন করবেন। এ কারণে তিনি মাঠে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।’

তিনি জানান, জোট থেকে সিলেট সিটিতে জামায়াতকে ছাড় দিলে ভালো না দিলে এখানে জামায়াতের প্রার্থী অংশ নেবে এটাই দলের সিদ্ধান্ত। ইতোমধ্যে সিলেটে জামায়াতের নেতাদের ও তৃণমূলের এ সিদ্ধান্তের কথা কেন্দ্রীয় সংগঠনকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। গতবার বিশেষ কারণে সিলেটের স্থানীয় নির্বাচনে বিএনপিকে ছাড় দিয়েছিল জামায়াত।

দলের নেতাকর্মীদের অভিযোগ, জোটের হয়ে আন্দোলন করতে গিয়ে সিলেটে সবচেয়ে বেশি মামলা, হামলার শিকার হয়েছে জামায়াতের নেতাকর্মীরা। আমাদের কাঁধে বন্দুক রেখে পাখি শিকার করেছে বিএনপি। আমাদের নেতাকর্মীরা এখনও ঘর ছাড়া। কিন্তু বিএনপির নেতা থেকে শুরু করে কর্মীরা নিরাপদ রয়েছে। তারা জোটের হয়ে তেমন কোনও আন্দোলনই করেনি। এবার দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের চাওয়া সিলেট সিটি নির্বাচনে দল থেকে প্রার্থী দেওয়া। সেই চাওয়া থেকে দলের শীর্ষস্থানীয় নেতরা এবার প্রার্থী নাম ঘোষণা করেছেন।

সিলেট মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারী মাওলানা সোহেল আহমদ বলেন, গত উপজেলা নির্বাচনে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় জোট থেকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা দেওয়া হয় জামায়াতকে। কিন্তু জোটের সিদ্ধান্ত না মেনে ওই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেন সিলেট বিএনপির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ। যে কারণে আমাদের দলের প্রার্থী হেরেছেন। অথচ তার বিরুদ্ধে দল থেকে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

তিনি জানান, ওই নির্বাচনে সিলেটের অন্যান্য উপজেলায় জোট থেকে বিএনপির প্রার্থী দেওয়ার পর সেখানে জামায়াতের দায়িত্বশীল নেতারা সিদ্ধান্ত না মেনে প্রার্থী হলে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। এবারের সিটি নির্বাচনে আমাদের দল চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে। আমাদের দল থেকে সিটি নির্বাচনে অংশ নিবেন মহানগর জামায়াতের আমির অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের।

তিনি আরও জানান, আমরাও আমাদের সিদ্ধান্তে অনড়। জোট থেকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ না দিলেও এবার সিলেট সিটিতে নির্বাচনে অংশ নেবে জামায়াত। আমরা আমাদের শক্তি প্রদর্শন করতে চাই।

মেয়র প্রার্থী ও মহানগর জামায়াতের আমির অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের জানান, আমাদের দলটি সিলেটে অত্যন্ত গতিশীল ও শক্তিশালী। সিলেট থেকে দলটির সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় জোটের নেতাদের। দল থেকে নেওয়া সিদ্ধান্তের সঙ্গে আমিও একমত রয়েছি। সিলেট সিটির ২৭টি ওয়ার্ডে রয়েছে আমাদের বিশাল ভোট ব্যাংক। জোট থেকে ছাড় না দিলেও এবারের সিটি নির্বাচনে জামায়াত অংশ নেবে। আগামীতে বিএনপির আচরণ দেখে জাতীয় নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিবে।

এদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে জামায়াত সরকারের সহানুভূতি পাওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। তারা জামায়াতকে বেঈমান বলেও অভিহিত করেছেন।

 


আরও সংবাদ