শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০২:১১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ

১ টাকার অভিনয়শিল্পী

কমলিকা হাসান
আপডেট : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১

জাগো থেকে বঙ্গবন্ধু, মাঝখানে এক দশক। এই সময়ে নিজেকে আমূল বদলে ফেলেছেন আরিফিন শুভ। ক্যারিয়ারে যোগ করেছেন ভিন্নধর্মী সব চরিত্র। আর এবার তো পেয়ে গেছেন অভিনয়জীবনের সেরা এক চরিত্র, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনা। বড় বাজেট। এমন একটা ছবিতে শুভর পারিশ্রমিক কত, জানেন? এক টাকা! কেন? অভিনয় করে খুব যে টাকা–পয়সাওয়ালা হয়ে গেছেন, তা–ও তো নয়। কোন সাহসে তবে মাত্র এক টাকার বিনিময়ে এত দীর্ঘ সময়ের একটি কাজে যুক্ত হলেন?

আরিফিন শুভ

মঙ্গলবার সকালে এ প্রশ্ন দিয়েই আলাপ শুরু করা গেল। শুভ বলেন, ‘ক্ষুদ্র একজন অভিনয়শিল্পী হিসেবে আমার মনে হয়েছে, একটা চরিত্র হয়ে উঠতে গেলে সেটার নার্ভ ধরতে হয়, হোক সেটা ফিকশনাল বা বাস্তবধর্মী। কিসের ওপর ভর করে চরিত্রটা ফুটিয়ে তুলব?

আরিফিন শুভ

শুনেছি, বঙ্গবন্ধু তাঁর জীবনের ১১ বছর ৪ মাস ২২ দিন কারাগারে কাটিয়েছেন। এই মানুষটার চরিত্রের অন্যতম বৈশিষ্ট্য স্যাক্রিফাইস। জীবদ্দশায় মানুষ ও দেশের জন্য কেবল ত্যাগই করে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর সাহস ও স্যাক্রিফাইসের কাছে আমার এই স্যাক্রিফাইস কিছুই না। মনে হয়েছে, এই সামান্য স্যাক্রিফাইসের মাধ্যমে তাঁর চরিত্রের গভীরতা কিছুটা হলেও উপলব্ধি করতে পারব। সেই ভাবনা থেকেই পরিচালককে বলেছিলাম, প্রাপ্য যা–ই হোক, আমি নেব না। এ–ও বলেছিলাম, যেহেতু আমার রক্ত, ঘাম সবই এই সিনেমায় থাকবে, পরিশ্রম করব—ফ্রি কাজ করব না। আমি এক টাকা নেব, নিয়েছি।’

২০১৯ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি বঙ্গবন্ধুতে অভিনয়ের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পান আরিফিন শুভ। তার আগে পাঁচ দফা অডিশন হয়। দুবার ভারতে, তিনবার বাংলাদেশে। আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে চূড়ান্ত করার দিন শুভর কাছে জানতে চাওয়া হয়, কোনো শর্ত আছে?

জাভেদ আখতার ও আরিফিন শুভ

জাভেদ আখতার ও আরিফিন শুভ

এ প্রসঙ্গে শুভ বলেন, ‘বললাম, শর্ত একটাই, সম্মানি নেব এক টাকা।’ কেন? জবাব শুনে তাঁরা মুগ্ধ। পরিচালক শ্যাম বেনেগালের কাছে তাঁর উপাধিই হয়ে গেল ‘ওয়ান টাকা আর্টিস্ট’। শুভ মনে করেন, এটা তাঁর জীবনের অন্য রকম এক স্বীকৃতি। শুভ বলেন, ‘তাঁরা কিন্তু আমার শর্তে সঙ্গে সঙ্গে রাজি হননি। আমাকে ফাইট করতে হয়েছে। এক টাকার চেকটা ফাইনালি আমার হাতে আসতে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে।’

বাংলাদেশের একজন অভিনয়শিল্পী হিসেবে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় অনেক বড় সম্মান। অর্থ তার কাছে নগণ্য। শুভ বললেন, ‘অর্থ দিয়ে হয়তো পার্থিব কিছু সুখ পাওয়া যাবে, কিন্তু আত্মার তৃপ্তি মিলবে না, সে সুযোগ সৃষ্টিকর্তা আমাকে দিয়েছেন। আরেকটা বিষয় হচ্ছে, শ্যাম বেনেগালের মতো পরিচালকের সান্নিধ্য। এসব টাকা দিয়ে মাপা বোকামি। আমার আসলে কোনো প্রাপ্তির আশা নেই। এবার আমি কী করতে পারি, দেখি।’

করোনা মহামারির প্রথম ঢেউয়ের মধ্যেই শুরু হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর কাজ। এরই মধ্যে ভারতের মুম্বাইয়ে হয়ে গেছে ছবির অনেক অংশের শুটিং। শিগগিরই হয়তো বাংলাদেশ অংশের শুটিং শুরু করবেন শ্যাম বেনেগাল।


এ বিভাগের আরও সংবাদ