1. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. [email protected] : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. [email protected] : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
মাত্র ১২ বছর বয়সেই দুর্ধর্ষ মোটরসাইকেল চোর! - ebarta24.com
  1. [email protected] : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. [email protected] : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. [email protected] : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
মাত্র ১২ বছর বয়সেই দুর্ধর্ষ মোটরসাইকেল চোর! - ebarta24.com
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০২:৩০ অপরাহ্ন

মাত্র ১২ বছর বয়সেই দুর্ধর্ষ মোটরসাইকেল চোর!

চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ২০ জুন, ২০২২

মাত্র ১২ বছর বয়সে সাইকেল চুরির মাধ্যমে অপরাধ জগতে প্রবেশ। দুই বছরে চুরি করেছে একশর বেশি সাইকেল। মাঝে একবার গ্রেফতার হয়ে ৫টি মামলায় আসামি। এক বছরের মাথায় জামিনে মুক্ত হয়ে পেশাদার মোটরসাইকেল চোর। এবার ৭টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ চট্টগ্রামে গ্রেফতার হয়েছে অপরাধ জগতে ভাইরাল চোর হিসেবে চিহ্নিত কিশোর।

নগরীর এমন কোনো জায়গা নেই, যেখানে এই কিশোরের সাইকেল কিংবা মোটরসাইকেল চুরির সিসিটিভি ফুটেজ পুলিশের কাছে আসেনি। চোখের নিমেষে মোটরসাইকেল নিয়ে হাওয়া হয়ে যায় সে। এমনকি অনেকেই তার চুরির ফুটেজ ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার করে তাকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

দু-বছরের মাথায় এসে আবারও পুলিশের হাতে ধরা পড়ল এই কিশোর। মোটরসাইকেল নিয়ে পুলিশ চেকপোস্ট অতিক্রম করার সময় সন্দেহভাজন হিসেবে বন্দর থানা পুলিশ তাকে আটক করে। পরবর্তী সময়ে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী উদ্ধার করা হয়েছে ৭টি মোটরসাইকেল। তবে একই সঙ্গে আটক করা হয়েছে আরও দুজনকে। মূলত চোরাই মোটরসাইকেল বিক্রি করত সাজ্জাদ নামে এক তরুণের কাছে।

সহকারী কমিশনার কাজী তারেক আজিজ বলেন, সে দাবি করে এক ব্যক্তির কাছ থেকে চাবির গোছা পেয়েছে। সেটা দিয়েই সে মোটরসাইকেল ও সাইকেলের তালা ভেঙে চুরি করে।

পঞ্চম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় পাড়া-মহল্লা থেকে সাইকেল চুরি করে নামমূল্যে বিভিন্ন মার্কেটের সেলস বয়দের কাছে বিক্রি করত এই কিশোর। এরই মধ্যে কয়েকশ সাইকেল চুরির অভিজ্ঞতা হয় তার।

তবে কোতোয়ালি থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার পর তাকে কিশোর সংশোধনাগারেও পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এক বছর আগে সেখান থেকে মুক্ত হয়ে এসে মোটরসাইকেল চুরি শুরু করে। এই কিশোর অপরাধী বলে, ‘এ পর্যন্ত ৭-৮টা মোটরসাইকেল চুরি করেছি। আর সাইকেল চুরি করেছি ২০-২৫টা।

শিশু থেকে কিশোর বয়সে উত্তরণের সময় একের পর এক অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়াকে নিম্নবিত্ত পরিবারের সামাজিক অবক্ষয় হিসেবেই দেখছে পুলিশ। মা-বাবা থেকে বিতাড়িত এই কিশোর গত কিছুদিন ধরে নানির আশ্রয়ে ছিল। অতিরিক্ত উপকমিশনার আবুল কালাম সাহিদ বলেন, ‘আসলে সামাজিক নিরাপত্তার অভাবেই ও আজ এই কাজ ছেড়ে দিতে পারছে না।’

সাতটি মোটরসাইকেল উদ্ধারের ঘটনায় অভিযুক্ত কিশোরসহ তিনজনের বিরুদ্ধে বন্দর থানায় আরও একটি মামলা করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
ebarta24.com © All rights reserved. 2021