1. অন্যরকম
  2. অপরাধ বার্তা
  3. অভিমত
  4. আন্তর্জাতিক সংবাদ
  5. ইতিহাস
  6. এডিটরস' পিক
  7. খেলাধুলা
  8. জাতীয় সংবাদ
  9. টেকসই উন্নয়ন
  10. তথ্য প্রযুক্তি
  11. নির্বাচন বার্তা
  12. প্রতিবেদন
  13. প্রবাস বার্তা
  14. ফিচার
  15. বাণিজ্য ও অর্থনীতি

বিমানবন্দরে কঙ্গনাকে চড় মেরে আলোচনায় পাঞ্জাবি নারী কনস্টেবল!

নিউজ এডিটর : ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম
শুক্রবার, ৭ জুন, ২০২৪

লোকসভা নির্বাচনে ভারতের হিমাচল প্রদেশের মান্ডি আসন থেকে বিজেপি হয়ে লড়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বলিউড তারকা কঙ্গনা রানাউত। তবে সেই খুশির রেশ না কাটতেই বিমানবন্দরে নিরাপত্তাকর্মীর হাতে চড় খেয়ে ফের আলোচনায় বলিউড তারকা কঙ্গনা রানাউত।

বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) হিমাচলের মাণ্ডির নতুন সংসদ সদস্যকে সপাটে ‘চড়’ মারার অভিযোগ উঠল সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের এক নারী কনস্টেবলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় তাকে তাৎক্ষণিকভাবে সাময়িক বরখাস্তের পর আটক করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে একটি কমিটিও গঠন করেছে সিআইএসএফ। কিন্তু কেন আচমকাই কেন আক্রমণের শিকার হলেন বিজেপির এই সদস্য?

জানা গেছে, ২০২১ সালে দিল্লির রাজপথে পাঞ্জাবের কৃষক আন্দোলনের বিরোধিতা করে পর পর আক্রমণাত্মক টুইট করেছিলেন কঙ্গনা। এর জেরে আইনি বিপাকেও পড়তে হয় তাকে। এবার চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে তারই মাশুল গুনতে হলো। কৃষক বিক্ষোভের সময় আন্দোলনে অংশ নেয়া পাঞ্জাবের নারীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন কঙ্গনা। মূলত এ কারণেই পাঞ্জাবের অধিবাসী কুলবিন্দর কঙ্গনার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন।

জানা যায়, কুলবিন্দর পাঞ্জাবের সুলতানপুর লোধির বাসিন্দা। তিনি দুই বছর ধরে চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তার স্বামীও সিআইএসএফের একজন সদস্য। এছাড়া কুলবিন্দরের ভাই শের সিং একজন কৃষকনেতা। তিনি কিষান মজদুর সংগ্রাম কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক।

সে সময় আন্দোলনরত কৃষকদের ‘খালিস্তানি’, ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলে অভিহিত করেছিলেন কঙ্গনা। এমনকি প্রধানমন্ত্রী মোদি যখন বিতর্কিত তিন কৃষি বিল প্রত্যাহার করে নেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন তখনো কৃষকদের ‘জিহাদি’ বলে আক্রমণ করেন বলিউড অভিনেত্রী। সেই প্রেক্ষিতেই কঙ্গনার বিরুদ্ধে চটেছিল শিখ সম্প্রদায়ের একাংশ। এবারও সেই রাগের বশেই কঙ্গনাকে সপাটে চড় মেরেছেন ওই নারী কনস্টেবল।

এদিকে এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় সামাজিক মাধ্যম এক্সে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন কঙ্গনা।

সেখানে তিনি বলেন, আমি নিরাপদ আছি। সিকিউরিটি চেকিংয়ের সময়ই এ ঘটনা ঘটে। সেখানে আমার কাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত ওই নারী অপেক্ষা করছিলেন যে, কখন আমি তার সামনে দিয়ে যাব। হঠাৎ পাশ থেকে আমার গালে চড় মারেন এবং গালি দিতে শুরু করেন। আমি যখন তাকে জিজ্ঞেস করলাম, কেন তিনি এই কাজ করলেন? তিনি তখন কৃষক আন্দোলনের কথা টেনে আনলেন।

কঙ্গনা আরও বলেন,পাঞ্জাবে বাড়তে থাকা সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন। কীভাবে এদের সামাল দেবো আমরা?


সর্বশেষ - জাতীয় সংবাদ