মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪২ পূর্বাহ্ন

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধু খুন। দেবর ও শাশুড়ী পালাতক

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

মোঃ তাওহীদুল হক চৌধুরী: নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নের মিয়াপুর গ্রামে এক গৃহবধু খুন হয়েছে। নিহত গৃহবধু জান্নাতুল ফেরদৌস (১৯)উপজেলার আমানউল্যাপুর ইউনিয়নের মহিষপুর গ্রামের রৌশন আলী মুন্সি বাড়ির আবুল হোসেনের মেয়ে।

গতকাল বুধবার সকালে শশুর বাড়ীর লোকজন ঘরের ভুতুরের সাথে গলায় ওরনা পেচানো অবস্থায় নিহত গৃহবধুর রহস্যময় ঝুলন্ত লাশ (মাটির সাথে পা লেগে থাকা অবস্থায়) দেখতে পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঐ গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।তবে এই সময় বাড়িতে থাকা শাশুড়ী দুলালী বেগম (৫৫), দেবর মিজান (৩০) ও শুভ (২৮) পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে নিহতের বাবা আবুল হোসেন বেগমগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করতে গেলে থানা মামলা গ্রহণ না করে তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদিকে নিহতের স্বামী মনির হোসেনও স্ত্রী হত্যার জন্য তার মা ও সহদোর ভাইদের দায়ী করে সুষ্ঠ বিচার দাবী করেছে।

নিহতের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ৮ নভেম্বর একই উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নের মিয়াপুর গ্রামের জয়নাল বাবুর্চির ছেলে মনির হোসেনের সাথে বিয়ে হয়। নিহতের স্বামী মনির হোসেন রাজশাহী সেনাবাহিনীর অধিনে বেসরকারীভাবে টেকনিক্যাল বিভাগের পাইপ পিটারের কর্মরত।বিয়ের পর থেকে চাকুরীর সুবাদে স্বামী মনির হোসেন কর্মস্থলে থাকায় তার অগোচরে নিহতের শাশুড়ী ও দেবরেরা মিলে নিহতের পরিবারের কাছে প্রায়ই যৌতক চাইত এবং যৌতুকের দাবীতে তারা তাকে মারধরও করত।

এদিকে নিহতের মামা জানান নিহতের স্বামী মনির হোসেন আগে একটি বিয়ে করেছিলো। কিন্তু যৌতুক লোভী শাশুড়ী ও দেবরদের অত্যাচারে ঐ বৌ বিয়ের পনের দিনেই বাবার বাড়ী চলে যায়। পরে মনির হোসেন নিহত জান্নাতুল ফেরদৌস কে বিয়ে করে। অসহায় কৃষক বাবার মেয়ে হওয়ায় জান্নাত শশুর বাড়ীর সকল অত্যাচার নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করে সুখের নীড় গড়তে চেয়েছিলো কিন্তু ঘাতক শাশুড়ী ও দেবরেরা তা করতে দেয় নি।

বেগমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সাজেদুর রহমান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে জানা এটি পরিকল্পিত হত্যা কিনা। তারপর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও সংবাদ