বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৫০ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
গোলাম আজমের ভাগ্নে ও জামাতি টাকায় চলা ছাত্র পরিষদের মুখোশ খুলে যাচ্ছে ! শেখ হাসিনাকে জন্মদিনে মোদী পাঠালেন ফুল, চীনের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন পঁচাত্তরের খুনিদের দায়মুক্তি অধ্যাদেশ “ধর্ষিত” মামুনের স্ক্রিনশপ জালিয়াতি ফাঁস : ইলিয়াস সহ সুশীলদের কটাক্ষ জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ : বিশ্ব সভায় বাংলা ভাষার প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিনিধিত্ব গার্ডিয়ানে প্রকাশিত শেখ হাসিনার নিবন্ধ: ‘আ থার্ড অফ মাই কান্ট্রি ওয়াজ জাস্ট আন্ডারওয়াটার। দ্য ওয়ার্ল্ড মাস্ট অ্যাক্ট অন ক্লাইমেট’ হেফাজতের কর্তৃত্ব যাচ্ছে দেওবন্দের কাফের ঘোষিত জামায়াতের কব্জায় ! অনলাইনে মিলছে টিসিবির পেঁয়াজ আজ টিউলিপ সিদ্দিকের জন্মদিন বাংলাদেশের সঙ্গে রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র

ড্রেজার ক্রয়ে পুনরায় দরপত্র আহবানের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

১০টি ড্রেজার ও নৌযান ক্রয়ে প্রস্তাবিত আন্তর্জাতিক দরপত্রে মাত্র একজন অংশ নেয়ায় বিস্ময় প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়কে পুনরায় দরপত্র আহবানের নির্দেশ দিয়েছেন।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) ১০ টি ড্রেজার এবং অন্যান্য সহায়ক নৌযান ক্রয়ে করেছে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করেছিল। এতে শুধু একটি কোম্পানি ৯৪০ কোটি টাকায় দরপত্র জমা দেয়।
পরবর্তিতে বিআইডব্লিউটিএ দরপত্রটি নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের কাছে জমা দিলে তা প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য প্রেরণ। কিন্তু দরপত্রে একটি মাত্র কোম্পানি অংশ নেয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে শেখ হাসিনা পূর্বের দরপত্র বাতিল করে মন্ত্রণালয়কে পুনরায় টেন্ডার আহবানের নির্দেশ দেন।

কয়েকটি সূত্র বিস্ময় প্রকাশ করে প্রশ্ন তোলেন, বিআইডব্লিউটিএ এবং নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় এত বড় অংকের একটি টেন্ডার কী করে একটি নির্দিষ্ট কোম্পানির পক্ষে অনুমোদনের প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রেরণ করে! ইতোপূর্বে ড্রেজার ক্রয়ে দুর্নীতি সম্পর্কে কয়েকটি সংবাদপত্রে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল। সংসদীয় স্থায়ী কমিটিকে কয়েকজন সাংসতও এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। ফলে ড্রেজারের গুণমান নিশ্চিত করার জন্য মিলিটারী সায়েন্স ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি) এর সামরিক বিশেষজ্ঞদের যুক্ত করা হয়।

এদিকে ১৩ সেপ্টেম্বর পুনরায় টেন্ডার আহবান করা হয়েছে। একটি সূত্র জানায়, সংযুক্ত আরব আমিরাত-ভিত্তিক এপিটি মেরিন সার্ভিসেস লিমিটেড ছাড়াও দেশী কোম্পানী কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স, খুলনা শিপইয়ার্ড এবং আনন্দ বিল্ডার্স লিমিটেড দরপত্র জমা দিয়েছে।

এর আগে, সরকার বিআইডব্লিউটিএ’র জন্য ২০ টি ড্রেজার সংগ্রহের সিদ্ধান্ত নেয় যা দেশের নদীগুলোকে তাদের নৌযান বৃদ্ধি করতে হবে। ড্রেজারের ক্রয়ের অংশ হিসেবে কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স ইতিমধ্যে ১০ টি ড্রেজার নির্মাণের জন্য ৭৭০ কোটি টাকার একটি অর্ডার অর্ডার পেয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র মতে, এখন মোট ২১ টি ড্রেজার রয়েছে। পাশাপাশি, চারটি নতুন ৮ ইঞ্চি অ্যাম্বিবিয়ানের ড্রেজার ইতিমধ্যেই সংগ্রহ করা হয়েছে, যা খালি খাল ও সংকীর্ণ নদী পথে ব্যবহৃত হবে।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্র জানায়, বঙ্গবন্ধু সরকারের শাসনামলের সাতটি পুরানো ড্রেজার মেরামত করা হয়েছে, যা সাম্প্রতিক সময়ে পাওয়া নতুন ড্রেজারের তুলনায় খুব ভালো।


আরও সংবাদ