1. alamin@ebarta24.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. online@ebarta24.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. reporter@ebarta24.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. news@ebarta24.com : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
বিশ্বে প্রতি ৪ সেকেন্ডে ক্ষুধায় একজন করে মানুষের মৃত্যু - ebarta24.com
  1. alamin@ebarta24.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. online@ebarta24.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. reporter@ebarta24.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. news@ebarta24.com : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
বিশ্বে প্রতি ৪ সেকেন্ডে ক্ষুধায় একজন করে মানুষের মৃত্যু - ebarta24.com
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০১:১৮ অপরাহ্ন

বিশ্বে প্রতি ৪ সেকেন্ডে ক্ষুধায় একজন করে মানুষের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২

বিশ্বে প্রতি চার সেকেন্ডে ক্ষুধায় একজন করে মানুষের মৃত্যু ঘটছে। এই সতর্কবার্তা দিয়ে ক্রমবর্ধমান ক্ষুধা সংকটের অবসানে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিশ্বের দুই শতাধিক বেসরকারি সংস্থা (এনজিও)।

গতকাল মঙ্গলবার এক খোলা চিঠিতে এই আহ্বান জানানো হয়। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে যেসব বিশ্বনেতা যোগ দেবেন, তাঁদের উদ্দেশে এই খোলা চিঠি।

অক্সফ্যাম, সেভ দ্য চিলড্রেন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালসহ ৭৫টি দেশের ২৩৮টি সংস্থা এই চিঠির মাধ্যমে ক্ষুধার স্তরের ঊর্ধ্বগতি নিয়ে এই উদ্বেগ প্রকাশ করে। এতে খাদ্যাভাবের মাত্রা প্রসঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংস্থাগুলো।

খোলা চিঠিতে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, ‘বিশ্বের সাড়ে ৩৪ কোটি মানুষ তীব্র ক্ষুধায় ভুগছে, ২০১৯ সালের তুলনায় যা দ্বিগুণ। ’

বিবৃতিতে বলা হয়, একবিংশ শতাব্দীতে দুর্ভিক্ষকে আর কাছে ঘেঁষতে দেওয়া হবে না বলে বিশ্বনেতাদের অঙ্গীকার সত্ত্বেও সোমালিয়ায় আরো একবার দুর্ভিক্ষ আসন্ন। বিশ্বজুড়ে ৪৫টি দেশে পাঁচ কোটি মানুষ অনাহারের দ্বারপ্রান্তে। প্রতিদিন ১৯ হাজার ৭০০ জন লোক ক্ষুধায় মারা যাচ্ছে বলে অনুমান করেছে সংস্থাগুলো।

চিঠিতে স্বাক্ষরকারী সংস্থা ইয়েমেন ফ্যামিলি কেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের মোহান্না আহমেদ আলি এলজাবালি বিবৃতিতে বলেন, ‘এটি অত্যন্ত দুঃখজনক যে কৃষিকাজে সব ধরনের প্রযুক্তি বিদ্যমান থাকা সত্ত্বেও একবিংশ শতাব্দীতে আমরা দুর্ভিক্ষের কথা বলছি। ’

তিনি বলেন, ‘এটা শুধু একটি দেশের বা একটি মহাদেশের চিত্র নয়। আর কখনোই শুধু একটি কারণে খাদ্যের অভাব দেখা দেয় না। ’

আলি এলজাবালি বলেন, ‘তাত্ক্ষণিক জীবনরক্ষাকারী খাদ্য ও দীর্ঘমেয়াদি সহায়তা প্রদানের বিষয়টির ওপর গুরুত্বারোপে আমাদের আর এক মুহূর্তও অপেক্ষা করা উচিত নয়, যাতে মানুষ তাদের ভবিষ্যতের দায়িত্ব নিতে পারে এবং নিজের ও পরিবারের জন্য খাবার সরবরাহ করতে পারে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
ebarta24.com © All rights reserved. 2021