শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন
শীর্ষ সংবাদ
পঁচাত্তরের খুনিদের দায়মুক্তি অধ্যাদেশ “ধর্ষিত” মামুনের স্ক্রিনশপ জালিয়াতি ফাঁস : ইলিয়াস সহ সুশীলদের কটাক্ষ জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ : বিশ্ব সভায় বাংলা ভাষার প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিনিধিত্ব গার্ডিয়ানে প্রকাশিত শেখ হাসিনার নিবন্ধ: ‘আ থার্ড অফ মাই কান্ট্রি ওয়াজ জাস্ট আন্ডারওয়াটার। দ্য ওয়ার্ল্ড মাস্ট অ্যাক্ট অন ক্লাইমেট’ হেফাজতের কর্তৃত্ব যাচ্ছে দেওবন্দের কাফের ঘোষিত জামায়াতের কব্জায় ! অনলাইনে মিলছে টিসিবির পেঁয়াজ আজ টিউলিপ সিদ্দিকের জন্মদিন বাংলাদেশের সঙ্গে রাজনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র প্রধানমন্ত্রীকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফোন ফ্রন্টিয়ার, ইমার্জিং ও ডেভেলপড মার্কেট রিটার্নে সবার ওপরে বাংলাদেশ

রাশিয়ার পার্লামেন্টে রোহিঙ্গা ইস্যু অধিক গুরুত্ব পাবে

ইবার্তা ডেস্ক
আপডেট : বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭

রাশিয়ার পার্লামেন্টের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান ও উচ্চ কক্ষ সিনেটর কন্সটান্টিন কসাসেভ আশ্বাস দিয়েছেন যে তাদের পার্লামেন্টে রোহিঙ্গা সংকট অধিক গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া হবে।
তিনি মঙ্গলবার ইন্টার পার্লামেন্টারী ইউনিয়নের (আইপিইউ) সম্মেলনের ফাঁকে ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বি মিয়ার নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এক বৈঠকে এ আশ্বাস দেন।
কসাসেভ বলেন, আগামী দিনে রাশিয়ার পররাষ্ট্র বিষয়ক এজেন্ডায় এই (রোহিঙ্গা) ইস্যুটি অধিক গুরুত্ব পাবে। আজ মস্কোয় বাংলাদেশ দূতাবাসের এক বিবৃতিতে একথা জানা যায়।
এর আগে আইপিইউ ভয়াবহ মানবিক সংকট, নিপীড়ন ও রোহিঙ্গাদের উপর নৃশংস আক্রমণের অবসান শীর্ষক বাংলাদেশের এক প্রস্তাব পাস করে। কসাসেভ এই প্রস্তাব সফলভাবে পাসের জন্য বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলকে অভিনন্দন জানান।
তিনি দুর্গত মানুষকে সহায়তার জন্য ঢাকার ভূমিকার প্রশংসা করেন।
বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল রোহিঙ্গা সংকটের মূল কারণ সম্পর্কে রাশিয়ার দু’টি ভুল ধারণা দূর করেন।
এই দুই ভুল ধারণার মধ্যে একটি হচ্ছে রোহিঙ্গাদের উন্নত জীবনযাত্রার জন্য বাংলাদেশ থেকে সীমান্ত পেরিয়ে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বসতি স্থাপন এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছে ধর্মীয় সংঘাতের কারণে এই পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে কিনা?
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আসম ফিরোজ ও প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যরা রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে কসাসেভকে একটি সরকারি প্রতিনিধিদলসহ বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।
বাংলাদেশ প্রতিনিধি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে রাশিয়ার সমর্থনের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের মাইন অপসারণকালে রাশিয়ার কিছু কর্মীর আত্মদানের কথা স্মরণ করেন।
ফজলে রাব্বি রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের একটি স্বাক্ষর হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, রাশিয়া বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের নির্ভরযোগ্য বন্ধু। তিনি রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়াতে মস্কোর প্রতি আহ্বান জানান।
প্রতিনিধিদলের সঙ্গে ছিলেন রাশিয়া ফেডারেশনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. সাইফুল হক ও কাউন্সিল (রাজনৈতিক) ড. শাহ মোহাম্মদ তানভীর মনসুর।


আরও সংবাদ