1. alamin@ebarta24.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. online@ebarta24.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. reporter@ebarta24.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. news@ebarta24.com : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
চুরির অভিযোগে বস্তাবন্দি করে চার বছরের শিশুকে নির্যাতন - ebarta24.com
  1. alamin@ebarta24.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. online@ebarta24.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  3. reporter@ebarta24.com : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  4. news@ebarta24.com : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
চুরির অভিযোগে বস্তাবন্দি করে চার বছরের শিশুকে নির্যাতন - ebarta24.com
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:৫৭ অপরাহ্ন

চুরির অভিযোগে বস্তাবন্দি করে চার বছরের শিশুকে নির্যাতন

সম্পাদনা:
  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২ নভেম্বর, ২০১৭

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে চার বছরের শিশু পিয়াসকে বস্তাবন্দি করে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার রাকিব হোসেনের বিরুদ্ধে।
বুধবার রাতে গুরুতর আহত অবস্থায় পিয়াসকে উপজেলার বামনী এলাকায় উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার চোখ, মুখে ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ কারণে তাকে রেফার করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ওই এলাকার রাকিব হোসেনের একটি মোবাইল ফোন কে বা কারা চুরি করে। ওই মোবাইল ফোন চুরির অপবাদ দিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় পিয়াসকে ডেকে নেয় রাকিব। পরে চুরির অপবাধ দিয়ে বস্তাবন্দি করে তাকে বেদম মারপিট করে।
পিয়াসের বাবা সোহেল জানান, তার চার বছরের সন্তানকে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে একই এলাকার রাকিব তুলে নিয়ে বস্তাবন্দি করে নির্যাতন করে। পরে পিয়াসকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থা অবনতি ঘটলে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ নির্মম নির্যাতনের বিচার দাবি করেন তিনি।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম আজিজুর রহমান, নির্মম এ ঘটনার জন্যে অভিযুক্ত রাকিব হোসেনকে গ্রেফতারের অভিযান চলছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
ebarta24.com © All rights reserved. 2021