1. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  2. [email protected] : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  3. [email protected] : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
নেদারল্যান্ডসের আদলে গড়ে উঠছে ভবিষ্যতের পটুয়াখালী শহর - ebarta24.com
  1. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  2. [email protected] : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
  3. [email protected] : নিউজ এডিটর : নিউজ এডিটর
নেদারল্যান্ডসের আদলে গড়ে উঠছে ভবিষ্যতের পটুয়াখালী শহর - ebarta24.com
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ন

নেদারল্যান্ডসের আদলে গড়ে উঠছে ভবিষ্যতের পটুয়াখালী শহর

সম্পাদনা:
  • সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ৯ নভেম্বর, ২০২১

জলবায়ু পরিবর্তনসহ নানা কারণে হুমকির মুখে দেশের দক্ষিণের জনপথ। সে কারণে এসব এলাকার উন্নয়ন তথা নগরায়নের ক্ষেত্রে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বিষয়গুলোকে মোটা দাগে চিহ্নিত করা হচ্ছে। মাথায় রাখা হচ্ছে আগামী একশ বছরে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকির বিষয়টিও। নেদারল্যান্ডসের শহরের আদলে গড়ে উঠছে ভবিষ্যতের পটুয়াখালী শহর।

১৮৯২ সালে পটুয়াখালী পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি বাংলাদেশের প্রাচীন পৌরসভারগুলোর মধ্যে অন্যতম। ‘ক’ শ্রেণির এই পৌরসভার বর্তমান আয়তন ২৬ বর্গ কিলোমিটার। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে পটুয়াখালী পৌরসভা এলাকার জনসংখ্যা এক লাখ এবং হোল্ডিং সংখ্যা ৯,২২৩টি। তবে বর্তমানে এই শহরের জনসংখ্যা প্রায় ১ লাখ ৮০ হাজার।

পুরাতন একটি জেলা শহর হলেও এই শহরে এখনও কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হয়নি। এখনও শহরের অনেক সড়ক প্রশস্ত হয়নি। খালি পড়ে আছে সরকারি অনেক জমি। তবে সম্প্রতি এ শহরের উন্নয়নে কাজ করছে পটুয়াখালী পৌরসভা। সরকারি-বেসরকারি ও বৈদেশিক প্রতিষ্ঠানের অর্থায়নে এই শহরে চলছে হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ। আর এসব কাজের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পাচ্ছে শহরের পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলা।

পটুয়াখালীসহ দক্ষিণাঞ্চলে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দিনদিন বাড়ছে সাগর ও নদীর পানির উচ্চতা। এ কারণে অমাবশ্যা এবং পূর্ণিমার জোয়ারের পানিতে শহরের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়। এর ফলে কার্পেটিং সড়কগুলো যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তেমনি সড়কগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এ কারণে শহরের বর্তমান সড়কগুলো আরসিসি সড়ক হিসেবে নির্মাণ করা হচ্ছে।

এদিকে শহরের পয়োনিষ্কাশনসহ প্রকৃতিক পরিবেশ অক্ষুণ্ন রাখতে শহরের খালগুলোকে পুনরুদ্ধার এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা সচল করা হচ্ছে। পাশাপাশি শহরের দৈনন্দিন বর্জ্যগুলোকে একত্রিত করে তা রিসাইকেল করার উদ্যোগ নিয়েছে পৌরসভা। এ কারণে শহরের অদূরে সাড়ে সাত একর জমি এরইমধ্যে অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া বর্জ্য সংগ্রহ করে তা নির্দিষ্ট স্থানে রাখার জন্য তৈরি হচ্ছে ট্রান্সফার স্টেশন। এর ফলে যেখানে বর্জ্য সংগ্রহ করে রাখা হবে এর আশপাশের এলাকাও থাকবে পরিচ্ছন্ন।

পটুয়াখালী পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী জসিম উদ্দিন আরজু বলেন, কয়েক দফায় সার্ভে সম্পন্ন করে বুয়েটের একটি টেকনিকেল টিম পটুয়াখালী শহরের জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি করছে, যেখানে শহরের পরিবেশ-প্রতিবেশ থেকে শুরু করে আগামী একশ বছরে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকির বিষয় মাথায় রাখা হচ্ছে। ভবিষ্যতে পটুয়াখালী শহরটি হবে নেদারল্যান্ড শহরের আদলে। আর সেসব পরিকল্পনা মাথায় রেখেই বর্তমান সময়ের উন্নয়ন চলমান রয়েছে।

এদিকে পটুয়াখালী শহরে সাম্প্রতিক সময়ে সুপেয় পানির সংকট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে শহরের অধিকাংশ গভীর নলকূপ এখন অকেজো হয়ে পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ভূপৃষ্টের উপরিভাগের পানিকে সুপেয় পানি হিসেবে পরিণত করতে পৌরসভা শহরের দুই প্রান্তে দুটি সার্ফেস ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

পটুয়াখালী পৌরসভার মেয়র মহিউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, পটুয়াখালী শহর হবে একটি আধুনিক বাসযোগ্য শহর। শুধু কংক্রিটের উন্নয়ন নয়, এই শহরের সড়কগুলোর দু’পাশে থাকবে সবুজের সমারোহ, খালগুলো হবে দৃষ্টিনন্দন। পুকুরগুলোতে মানুষ চাইলে অজু ও গোসল করতে পারবে। সড়কের কোথাও ময়লার স্তূপ থাকবে না। এমন বিষয় মাথায় রেখে বর্তমানে সামগ্রিক উন্নয়ন চলমান রয়েছে। যে উন্নয়নই হবে সেটি হবে টেকসই এবং জনবান্ধব।





সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ





ebarta24.com © All rights reserved. 2021