[…]পরিমিত পরিমাণে খাদ্যশস্য আমদানির নির্দেশ দিয়েছেন শেখ হাসিনা […]পরিমিত পরিমাণে খাদ্যশস্য আমদানির নির্দেশ দিয়েছেন শেখ হাসিনা

পরিমিত পরিমাণে খাদ্যশস্য আমদানির নির্দেশ দিয়েছেন শেখ হাসিনা

ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম:
আপডেট সময়:আগস্ট ২৯, ২০১৭ , ৮:৫৪ পূর্বাহ্ন
বিভাগ: জাতীয় সংবাদ

খাদ্য ঘাটতি মেটাতে পরিমিত পরিমাণে খাদ্যশস্য আমদানির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা। গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে খাদ্যমন্ত্রীকে এমন নির্দেশ দেন তিনি।

জানা গেছে, মন্ত্রিসভা বৈঠকের অনির্ধারিত আলোচনায় খাদ্যমন্ত্রীর কাছে প্রধানমন্ত্রী জানতে চান, এখন পর্যন্ত দেশের খাদ্য ঘাটতি কত?

জবাবে কামরুল ইসলাম জানান, আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত দেশে খাদ্য ঘাটতি ২০ লাখ মেট্রিক টন হবে। তখন প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাহলে এই ২০ লাখ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যশস্য যেন আমদানি করা না হয়।
শেখ হাসিনা বলেন, প্রয়োজনের বেশি খাদ্যশস্য আমদানি করলে দেশের সাধারণ কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তাই পরিমিত পরিমাণে খাদ্যশস্য আমদানির নির্দেশ দেন তিনি।

আলোচনায় কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী মন্ত্রিসভাকে জানান, পর্যাপ্ত পরিমাণে আমন ধানের বীজ মজুদ আছে। এছাড়া আমনের চারাও পর্যাপ্ত পরিমাণে আছে। বন্যার পানি নেমে গেলে কৃষকরা আবার ধান রোপণ করতে পারবেন।

আলোচনায় কয়েকজন মন্ত্রী বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে অপরিকল্পিতভাবে অনেক সেতু ও কালভার্ট তৈরি করা হয়েছে। ফলে বন্যার পানি দ্রুত নিষ্কাশন হতে পারে না। তাছাড়া ছোটখাটো অনেক নদীতে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করা হচ্ছে। একইভাবে অনেকে সেতু ও কালভার্টের মুখ আটকে মাছ চাষ করা হচ্ছে। তার ওপর অনেকে নিজের সুবিধার জন্য সেতু ও কালভার্টের নিচে মাটি দিয়ে ভরাট করে ফেলেছেন। এসব কারণে বন্যার পানি দ্রুত নিষ্কাশন হতে পারছে না। আবার অনেক স্থানে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমকে বলেন, জেলা প্রশাসকদের বলেন নিজ নিজ এলাকার এসব অপরিকল্পিত যেসব সেতু ও কালভার্ট রয়েছে তা ভেঙে ফেলতে। একইসঙ্গে যেসব সেতু ও কালভার্টে বাঁধ দেওয়া হয়েছে সেসব উচ্ছেদ করতে। যাতে এসব স্থান দিয়ে দ্রুত পানি নিষ্কাশনে কোনো সমস্যা না হয়।



নির্বাচন বার্তা