[…]ট্রাম্পকে সরাসরি যুদ্ধের চ্যালেঞ্জ কিমের […]ট্রাম্পকে সরাসরি যুদ্ধের চ্যালেঞ্জ কিমের

ট্রাম্পকে সরাসরি যুদ্ধের চ্যালেঞ্জ কিমের

ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডটকম:
আপডেট সময়:আগস্ট ৩০, ২০১৭ , ১:৫১ অপরাহ্ন
বিভাগ: আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইবার্তা টুয়েন্টিফোর ডেস্ক: ‘কোরিয়ার উপসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন হানাদারদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু হয়েছে’, এই মর্মে আমেরিকাকে যুদ্ধের চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বেসর্বা কিম জং উন।

সরাসরি ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তুলেছেন কিম।
এ সম্পর্কে তিনি বলেনন, ‘প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন আগ্রাসন রুখতেই এই পদক্ষেপ। আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার ষড়যন্ত্র ভেস্তে দেওয়া হবে। ভয়াবহ ফল ভোগ করতে হবে ওই দুই দেশকে।’

কিম আরও বলেন, জাপান নয়, ‘কোরিয়ান পিপলস আর্মি’-র মিসাইলের নিশানায় রয়েছে গুয়ামের মার্কিন সেনাঘাঁটি।
গত শনিবার একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। গত মঙ্গলবারও রাজধানী পিয়ংইয়ং থেকে ব্যালিস্টিক মিসাইল উৎক্ষেপণ করে। আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার যৌথ সামরিক মহড়ার জবাব দিতেই তাঁর এই পদক্ষেপ বলে দাবি করেন কিম জং উন।

উত্তর কোরিয়ার ছোড়া ওই ব্যালিস্টিক মিসাইল জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের উপর দিয়ে গেলে জাপানি রাডারে তা ধরা পড়ে। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে ‘এয়ার রেড’ সাইরেন বেজে ওঠে। বাসিন্দারা ‘বম্ব শেল্টার’-এর মধ্যে আশ্রয় নেয়া শুরু করে। তবে মাঝ সমুদ্রে পড়ায় কেউ হতাহত হয়নি।
এদিকে, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে কঠোর এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কঠোর নিন্দা করে এক বার্তায় বলেন, নাগরিকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে প্রয়োজনে কিমের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ গ্রহণ করবে জাপান।
এর পরই জরুরি বৈঠকে বসে সিওল ও ওয়াশিংটন।

এদিকে, কোরীয় উপসাগরে ব্যাপক যৌথ সামরিক মহড়া চালাচ্ছে আমেরিকা ও উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনী। এই মহড়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া।

এ প্রসঙ্গে ওয়াশিংটন ও সিওল আড়ালে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে অভিযোগ করে কিম বলেন, এই মহড়া দেশের সার্বিক নিরাপত্তা পরিস্থিতির জন্য বিপজ্জনক।
তিনি পালটা হুমকি হিসাবে মার্কিন ভূখণ্ডে পরমাণু হামলার কথা বলেছেন।